দাতাদের তহবিল বাতিল, নির্বাচন কমিশনের প্রকল্প থেকে সরে গেল জাতিসংঘ

বাংলাদেশে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে চলমান একটি প্রকল্প মেয়াদ শেষ হওয়ার আট মাস আগেই প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতিসংঘ। ‘বাংলাদেশে নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শক্তিশালীকরণ’ নামের প্রকল্পটি এ মাস শেষেই বন্ধ করে দেয়া হবে বলে জাতিসংঘ জানিয়েছে। ২০১২ সালের এপ্রিল থেকে প্রকল্পটিতে তহবিল জোগাচ্ছিল ইউরোপীয় ইউনিয়ন, আমেরিকা ও ব্রিটেন।

জাতিসংঘের সংবাদ বিজ্ঞপ্তির বরাত দিয়ে ইউএনবি জানিয়েছে, দাতাদের তহবিল বাতিলের কারণে ২০১৫ সালের জুলাইয়ের শেষে প্রকল্পটি বাতিল হচ্ছে। এই প্রকল্পটি ২০১২ সালের এপ্রিলে শুরু হয়ে ২০১৬ সালের মার্চে গিয়ে শেষ হওয়ার কথা ছিল। মেয়াদ শেষের আট মাস আগেই নির্বাচন কমিশনের ওই প্রকল্প থেকে তহবিল প্রত্যাহার করে সরে যাচ্ছে ইউএনডিপি।

উল্লেখ্য, ১৯৯৫ সাল থেকে বাংলাদেশের নির্বাচন প্রক্রিয়ায় নানাভাবে সহায়তা করে আসছে জাতিসংঘ। এরই ধারাবাহিকতায় ‘বাংলাদেশে নির্বাচন ব্যবস্থাপনা প্রকল্প শক্তিশালীকরণ’ নামে একটি প্রকল্প ইউএনডিপির অধীনে পরিচালিত হচ্ছিল। ভোটার রেজিস্ট্রেশনে নতুন ডিজিটাল ব্যবস্থা থেকে শুরু করে নির্বাচনী ব্যবস্থার আধুনিকীকরণ এবং প্রশিক্ষণ ছিল এই প্রকল্পের কাজ। তবে এই প্রকল্প বন্ধ হলেও গণতান্ত্রিক সরকারব্যবস্থা শক্তিশালীকরণের প্রকল্পটি অব্যাহত থাকবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের বর্জনের মধ্যে দিয়ে ২০১৪ সালে ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত দশম সংসদ নির্বাচন নিয়ে জাতিসংঘসহ পশ্চিমা দেশগুলো ‘অসন্তোষের’ কথা জানিয়েছিল। দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করে আসা বিএনপি জোট সম্প্রতি তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশ নিলেও তাতে ব্যাপক অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগ ওঠে। পশ্চিমা কুটনীতিকরা এসব অনিয়ম ও কারচুপির তদন্ত দাবি করেছিলেন। তবে এসব অভিযোগের কোনোটির তদন্ত করেনি নির্বাচন কমিশন।

ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট গিবসন সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে সিটি নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ তদন্ত না হওয়াকে লজ্জাজনক বলে মন্তব্য করেন। এরপরই ‘বাংলাদেশে নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শক্তিশালীকরণ’ প্রকল্পটি বন্ধ করার ঘটনা ঘটল। তবে প্রকল্পে তহবিল বাতিলের চিঠিতে দাতারা নির্বাচন বিষয়ে কিছু উল্লেখ করেননি বলে ইউএনডিপির এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

You Might Also Like