দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন রামাফোসা

জ্যাকব জুমার পদত্যাগের পর দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন সিরিল রামাফোসা।

বৃহস্পতিবার সরকারি এক বিবৃতিতে বলা হয়, কেপ টাউনে আজ বিকেলে (স্থানীয় সময়) জাতীয় পরিষদ দেশটির নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করবে। জুমার পদত্যাগের পর নিয়মানুযায়ী ভাইস প্রেসিডেন্ট রামাফোসা ভারপ্রাপ্ত পেসিডেন্টের দায়িত্বে রয়েছেন।

এর আগে ক্ষমতাসীন দল আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেসের (এএনসি) চাপের মুখে পদত্যাগ করেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমা।

দুর্নীতির নানা অভিযোগে বেশ কিছু দিন ধরে পদত্যাগের জন্য চাপের মুখে ছিলেন জুমা। এখন এ পদত্যাগের মধ্য দিয়ে তার নয় বছরের শাসনামলের অবসান ঘটল।

বিবিসি জানিয়েছে, টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে ৭৫ বছরের জুমা বলেন, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে তিনি পদত্যাগ করছেন। তবে দলের সিদ্ধান্তের সঙ্গে তিনি একমত নন।

এর আগে আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেস (এএনসি) জুমাকে বুধবার দিন শেষেই পদত্যাগ করার আল্টিমেটাম দিয়ে বলেছিল, অন্যথায় বৃহস্পতিবার পার্লামেন্টে আস্থা ভোটের মুখোমুখি হতে হবে।

২০০৯ সাল থেকে ক্ষমতায় থাকা জুমার বিরুদ্ধে দুর্নীতির নানা অভিযোগ ওঠার পর তাঁর ওপর পদত্যাগের চাপ বাড়ছিল। নিজ দল এএনসির ভেতরেই প্রচণ্ড চাপে পড়েন তিনি। গত বছরের ডিসেম্বরে জুমার পরিবর্তে দলীয় প্রধানের দায়িত্ব দেওয়া হয় ভাইস প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসাকে।

পরে এক ভাষণে জুমা বলেছেন, সিরিল রামাফোসাকে পার্টি প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করে এএনসি যেভাবে তার আগাম বিদায়ের পথ তৈরি করেছে তার সঙ্গে তিনি একমত নন। তবে তিনি দলের নির্দেশ মেনে নিয়েছেন।

২০১৯ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠেয় সাধারণ নির্বাচনের আগে জুমাকে পদত্যাগে বাধ্য করার একটি অন্যতম কারণ হচ্ছে, ভারতীয় বংশোদ্ভূত ধনী ব্যবসায়ী গুপ্ত পরিবারের সঙ্গে তার সংশ্লিষ্টতা। দক্ষিণ আফ্রিকার প্রভাবশালী এ পরিবারের বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্ট জুমার সঙ্গে বন্ধুত্বের সুযোগ নিয়ে নিজেদের ব্যবসায়িক সুবিধার জন্য দেশটির রাজনীতিতে ব্যাপক প্রভাব বিস্তারের অভিযোগ রয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার পুলিশ বুধবার সকালে জোহানেসবার্গে গুপ্ত পরিবারের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তিনজনকে আটক করে। ফ্রি স্টেট প্রদেশের ভ্রেদে শহরে দরিদ্র কৃষ্ণাঙ্গ কৃষকদের সহায়তা করতে শুরু হয়েছিল এস্তিনা ডেইরি ফার্ম প্রকল্প। এ প্রকল্পের নামে গুপ্ত পরিবার লাখ লাখ ডলার পকেটে ভরেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। তবে গুপ্ত পরিবার এবং জুমা উভয়ই কোনোরকম অপকর্ম করার কথা অস্বীকার করে আসছেন।

এদিকে জুমার পদত্যাগের ঘোষণার পর এএনসি জানায়, এ পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার মানুষের জীবন সংশয়মুক্ত হলো। দলের ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল জেসি দুয়ার্তে সাংবাদিকদের বলেন, ‘জুমা এএনসির একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হিসেবেই থাকবেন। দলের জন্য তাঁর অবদান শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি।’

You Might Also Like