‘তেলের মূল্যহ্রাস স্বাধীনচেতা দেশগুলোর ওপর চাপ তৈরির কৌশল’

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেছেন, আমেরিকার তাবেদারি করতে নারাজ দেশগুলোর ওপর চাপ তৈরির কৌশল হিসেবে আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমিয়ে রাখা হয়েছে। শনিবার বিকেলে তেহরান সফররত ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর সঙ্গে এক বৈঠকে এ মন্তব্য করেছেন আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী।

তিনি বলেছেন, “চাপের মুখে যৌক্তিক প্রতিরোধ ও বিচক্ষণতার সঙ্গে লক্ষ্য অর্জনে অবিচল থাকার মাধ্যমে বিজয় অর্জন সুনিশ্চিত করা সম্ভব।”

পশ্চিম এশিয়ার দেশগুলোর বিরুদ্ধে আমেরিকার সব পরিকল্পনা ও ষড়যন্ত্র এরইমধ্যে ব্যর্থ হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। সর্বোচ্চ নেতা বলেন, কিন্তু তার পরও স্বাধীনচেতা দেশগুলোর ওপর চাপ সৃষ্টির অপকৌশল হিসেবে তেলের দাম কমিয়ে রাখা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, অতীতে যখন কিছু মুসলিম দেশ ইহুদিবাদী ইসরাইলকে তেল সরবরাহ বন্ধ করে দিত তখন পশ্চিমারা কান্নাকাটি শুরু করে দিত এই বলে যে, এসব দেশ তেলকে রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে। কিন্তু দুঃখজনকভাবে সেই দেশগুলোই এখন ওপেকভুক্ত কিছু দেশকে সঙ্গে নিয়ে মার্কিন নীতির সঙ্গে সমন্বয় করে তেলকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে।
খামেনেয়ী বলেন, যৌক্তিক নীতি গ্রহণ এবং নিজেদের মধ্যে সহযোগিতা বাড়ানোর মাধ্যমে স্বাধীনচেতা দেশগুলো এ ধরনের ষড়যন্ত্র ও বিদ্বেষের ক্ষতিকর প্রভাব কাটিয়ে উঠতে পারে।

মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন নীতির ব্যর্থতার কথা উল্লেখ করে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, “কেউ কেউ মনে করে আমেরিকাকে পরাজিত করা সম্ভব নয়। অথচ এটি একটি মস্ত বড় ভুল ধারণা।” তাঁর মতে, গত ১৫ বছরে একের পর এক ভুল সিদ্ধান্ত নেয়ার কারণে মধ্যপ্রাচ্যে আমেরিকার অবস্থান মারাত্মক নড়বড়ে হয়ে পড়েছে।

আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে ভেনিজুয়েলার প্রতিরোধকামী নীতির প্রশংসা করে বলেন, জোট নিরপেক্ষ আন্দোলনের বর্তমান সভাপতি হিসেবে দেশটি এ সংস্থাকে শক্তিশালী করতে গঠনমূলক ভূমিকা পালন করতে পারে। সাক্ষাতে প্রেসিডেন্ট মাদুরো মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে মার্কিন আগ্রাসন সত্ত্বেও ইরানের স্বাধীনচেতা নীতির প্রশংসা করে বলেন, এ অঞ্চলের বিভিন্ন দেশে যখন যুদ্ধ ও রক্তপাত চলছে তখন ইরানি জনগণ পূর্ণ শান্তি ও নিরাপত্তা ভোগ করছে। সাক্ষাতে ইরানের প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট ইসহাক জাহাঙ্গিরি উপস্থিত ছিলেন।

You Might Also Like