তীরে এসে তরী ডুবল ওয়েস্ট ইন্ডিজের!

চ্যালেঞ্জটা বেশ বড়ই, জিততে হলে ২৮৯ রান করতে হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। এই বড় লক্ষ্য তাড়া করতে করতে নেমে ক্যারিবীয়রা ভালোই খেলেছিল। দলকে জয়ের একেবারে কাছাকাছি নিয়েও গিয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পারেনি তারা। তীরে এসে তরী ডুবল ওয়েস্ট ইন্ডিজের।

আজ বৃহস্পিতার বিশ্বকাপের এই ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে মাত্র ১৫ রানে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। অস্ট্রেলিয়া প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ২৮৮ রান করে। জবাবে ক্যারিবীয়দের ইনিংস থামে ২৭৩ রানে।

জয়ের একেবারেই কাছাকাছি এসেও ওয়েস্ট জিততে পারেনি নিচের সারির ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায়। অধিনায়ক জেসন হোল্ডার ৫৭ বলে ৫১ রানের চমৎকার একটি ইনিংস খেলে দলকে একেবারেই জয়ের কিনারায় নিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি সাজঘরে ফিরলে আর কেউ পারেনি হাল ধরতে। এর আগে সেই হোপ ১০৫ বলে ৬৮ এবং নিকোলাস পুরান ৩৬ বলে ৪০ রান করেছিলেন। কিন্তু কেউই পারেননি দলের হার এড়াতে।

মিচেল স্টার্ক ১০ ওভার বল করে ৪৬ রানে পাঁচ উইকেট নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটিংয়ের কোমরটাই ভেঙে দেন। আর প্যাট কামিন্স পান দুই উইকেট।

এর আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেয় অস্ট্রেলিয়া। ৪৯ ওভারে ২৮৮ রান করে তারা। অসিদের সাবেক অধিনায়ক স্মিথ বিপর্যয় মোকাবিলায় ধীরস্থির হয়ে শুরু করেন ১০৩ বলে ৭৩ রান করেন তিনি। তবে ব্যাটিংয়ে স্মিথকেও ছাড়িয়ে যান কোল্টার-নাইল। ক্যারিয়ারে প্রথম অর্ধশতক পেয়েছেন তিনি। খেলেছেন ৬০ বলে ৯২ রানের একটি ইনিংস।

বোলারদের মধ্যে তিনটি উইকেট নিয়েছেন ব্রাথওয়েট। এ ছাড়া ওশান, কটরেল, রাসেল দুটি করে, হোল্ডার একটি উইকেট লাভ করেন।

ব্যাট করতে নেমে প্রথম ১০ ওভারের ভেতরেই দুইবার কটরেলের স্যালুট দেখল অস্ট্রেলিয়া। কটরেলের স্যালুট দেখা মানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রতিপক্ষের সর্বনাশ। প্রথম ১০ ওভারের মধ্যেই চার উইকেট নেই অস্ট্রেলিয়ার। যার মধ্যে ওয়ার্নার আর ম্যাক্সওয়েলকে আউট করে স্যালুট দিলেন কটরেল।

তবে অসিদের ত্রাতা হয়ে এলেন স্মিথ। সাবেক অধিনায়ক হাল ধরলেন। অর্ধশতক পূর্ণ করেন। কোল্টার-নাইলকে নিয়ে গড়েছেন জুটি। ওই জুটির দৃঢ়তায় ৩৯তম ওভারে ২০০ রান স্পর্শ করে অস্ট্রেলিয়া। ৪১ ওভার শেষে রান দাঁড়ায় ছয় উইকেটে ২১৫। স্মিথের পাশাপাশি অর্ধশতক করেন নাইলও।

প্রথম ১৩ ওভারে চার উইকেট হারিয়ে ৬৮ রান করে বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। ওয়ার্নার, ফিঞ্চ, খাজা আর ম্যাক্সওয়েলকে হারায় দলটি। ওয়ার্নার মাত্র তিন রানে বিদায় নিয়েছেন আর ম্যাক্সওয়েল কোনো রানই করতে পারেননি। নিজের প্রথম চার ওভারে মাত্র ১১ রান দিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে চাপে ফেলেন কটরেলই।

নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানকে মাত্র ১০৫ রানেই গুটিয়ে দেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। থমাস ও অধিনায়ক হোল্ডারের তোপে ১০৫ রান করতে পারেন সরফরাজরা। জবাবে তিন উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ওই ম্যাচে ৫০ করে আউট হন গেইল। ৩৪ বলে তিন ছক্কা ও ছয়টি চারে ওই রান করেন তিনি।

এদিকে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানকে সাত উইকেটে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। প্রথমে ব্যাট করে ২০৭ রান করে আফগানিস্তান। জবাবে তিন উইকেট হারিয়ে ২০৯ করে অস্ট্রেলিয়া। ওয়ার্নার ৮৯ রানের একটি দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন। অধিনায়ক ফিঞ্চ করেন ৬৬ রান।

এখন পর্যন্ত দুই দল ১৩৯ বার মুখোমুখি হয়েছে। এরমধ্যে অস্ট্রেলিয়া জয় পেয়েছে ৭৩ বার, ওয়েস্ট ইন্ডিজ জয় পেয়েছে ৬০ বার। তিনটি  ম্যাচ টাই হয়।

তবে বিশ্বকাপে জয়ের ক্ষেত্রে এগিয়ে আছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এখন পর্যন্ত নয়বার মুখোমুখি হয়েছে দুই দল। তারমধ্যে পাঁচবার জয়ী হয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, চার বার অস্ট্রেলিয়া।

You Might Also Like