তামিলনাডুতে টানা বৃষ্টি, নিহত ১২

টানা বৃষ্টিপাতে ভারতের তামিলনাডু রাজ্যে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। রাজ্যজুড়ে অন্তত ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের অধিকাংশের মৃত্যু হয়েছে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে।

রাজ্য সরকার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে চেন্নাইসহ রাজ্যের উপকূলীয় এলাকাগুলোতে ১০৫টি আশ্রয় শিবির খোলা হয়েছে। এসব শিবিরে ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ আশ্রয় নিয়েছে।

বৃষ্টির কারণে পাঁচদিন ধরে চেন্নাই ও রাজ্যের অন্যান্য উপকূলীয় শহরগুলোর স্কুল বন্ধ রাখা হয়েছে।নিম্নচাপের জেরে গত সপ্তাহে তামিলনাড়ুতে অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত শুরু হয়। বৃহস্পতিবার থেকে সেই বৃষ্টি আরও কয়েকগুণ বেড়ে যায়। শুক্রবার রাত পর্যন্ত চেন্নাইয়ে ৪৪১ দশমিক ৩ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। আর এতেই শহরের বিভিন্ন এলাকায় পানি জমে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।ভারতের সবচেয়ে বড় ও জনপ্রিয় সমুদ্র সৈকত মেরিনা বিচ শুক্রবার পানির নিচে তলিয়ে যায়। এর ফলে এই সৈকতের অস্তিত্ব বোঝার কোনো উপায় ছিল না।

এনডিটিভি জানিয়েছে, শনিবার সকালেও চেন্নাইতে ভারি বৃষ্টিপাত হয়েছে। শনিবার রাজ্যের উপকূলীয় এলাকাগুলোতে ভারি বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকতে পারে বলে সতর্ক করেছে আবহাওয়া দপ্তর।

গত এক সপ্তাহে বৃষ্টির কারণে অন্তত ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দক্ষিণ তামিল নাডুর থিরুভারুর এলাকায় বজ্রপাতে এক কৃষক মারা যান। এছাড়া চেন্নাইয়ে আরো দুই শিশু বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছে।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ই পালানিসোয়ামি এবং তার সহকারী ও পন্নিরসেলভাব চেন্নাই ও এর শহরতলীর বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেছেন। পালানিসোয়ামি বলেছেন, তার সরকার এই ‘যুদ্ধ-পরিস্থিতি’ সামল দিতে কাজ করছে।

এবারের বন্যা ২০১৫ সালের প্রবল বর্ষণকেও ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ওই সময় টানা বৃষ্টি ও বন্যায় চেন্নাই শহরেই দেড় শতাধিক লোকের মৃত্যু হয়।

You Might Also Like