হোম » তরুণ প্রজন্মের কাছে হট কেক ওয়ালটন ল্যাপটপ

তরুণ প্রজন্মের কাছে হট কেক ওয়ালটন ল্যাপটপ

ঢাকা অফিস- Saturday, January 28th, 2017

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় আসা স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কাছে ওয়ালটন ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ যেন হট কেকে পরিণত হয়েছে। মেলায় আসা প্রযুক্তিপ্রেমীরা ওয়ালটন মেগা প্যাভিলিয়নে একবার হলেও ঢুঁ মারছেন, হাতে নিয়ে দেখছেন ওয়ালটনের ল্যাপটপ।

স্মার্ট ডিজাইন, আকর্ষণীয় কালার, অত্যাধুনিক সব ফিচার সম্বলিত ওয়ালটন ল্যাপটপের প্রশংসা করছেন তারা। বাজারে অন্যান্য ব্র্যান্ডের একই কনফিগারেশনের ল্যাপটপের চেয়ে দামেও অনেক সাশ্রয়ী হওয়ায় তাদের বেশিরভাগই বেছে নিচ্ছেন ওয়ালটন ল্যাপটপ।

শনিবার সকালে মেলায় ওয়ালটন প্যাভিলিয়নে আসেন রাজধানীর মিরপুর বাঙলা কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী আফসানা মিম। তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, ক্লাস না থাকায় সহপাঠীদের সঙ্গে ঘুরতে এসেছি। বেশকিছু প্যাভিলিয়ন ঘুরে এবার ওয়ালটন প্যাভিলিয়নে এসেছি। এসেই জানতে পারলাম, কম টাকায় মানসম্মত ল্যাপটপ বিক্রি করছে ওয়ালটন। এরপর আমি ওয়ালটন ব্র্যান্ডের টামারিন্ড সিরিজের ২২ হাজার ৯৯০ টাকা মূল্যের নতুন মডেলের একটি ল্যাপটপ হাতে নিয়ে দেখি। ২০ মিনিট ব্যবহারও করি। অত্যন্ত দ্রুত গতি, অত্যাধুনিক ফিচার ও সাশ্রয়ী মূল্যে দেখে সেটি কেনার সিদ্ধান্ত নিই।

তিনি আরো বলেন, একাডেমিক বিভিন্ন অ্যাসাইনমেন্টের জন্য একটি ল্যাপটপ কেনা খুবই জরুরি। সেজন্য আমি বহুদিন ধরে প্রাইভেট টিউশনি করে লেখাপড়ার খরচ জোগানোর পাশাপাশি ল্যাপটপ কেনার জন্য কিছু টাকা আলাদা করে জমাচ্ছি। এখন পর্যন্ত সর্বসাকুল্যে হাজার বিশেক টাকা জমিয়েছি। কিন্তু এই টাকা দিয়ে বাজারে ভালো মানের ল্যাপটপ পাব না, তাই আমি খুবই হতাশ ছিলাম। আজ ওয়ালটন প্যাভিলিয়নে এসে আমার সেই হতাশা দূর হয়েছে। এখানে ২২ হাজার ৯৯০ টাকায় যে ল্যাপটপ পাওয়া যাচ্ছে, তা দিয়ে আমার সব প্রয়োজনই মিটবে। পাশাপাশি পূরণ হবে আমার দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন।

আফসানা মিমের মতো স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ শিক্ষার্থীর নজর কেড়েছে ওয়ালটন ল্যাপটপ।

সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, মেলার মূল ফটক দিয়ে ঢুকে একটু সামনে গেলেই দেখা মেলে মেলার সবচেয়ে বড় আর্কষণ ওয়ালটনের মেগা প্যাভিলিয়নের। ২৬-২৭ নম্বর প্যাভিলিয়ন মিলে এ মেগা প্যাভিলিয়ন করেছে ওয়ালটন। তিন তলা এ প্যাভিলিয়নে ঢুকতেই দেখা যায়, তরুণ-তরুণীদের উপছে পড়া ভিড়। বিশেষ করে, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের যেন মিলনমেলা এখানে। এ ছাড়া এ দিনটি সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় শিশু-কিশোরসহ সর্বস্তরের ক্রেতা-দর্শনার্থীদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো।

ওয়ালটন মেগা প্যাভিলিয়নের নিচের তলায় টেলিভিশন, ফ্রিজ ও গৃহস্থালির সরঞ্জামসহ চার শতাধিক পণ্য প্রদর্শন করা হচ্ছে। দ্বিতীয় তলায় ল্যাপটপ, মোবাইল, জেনারেটর এবং এসি বিক্রয় করা হচ্ছে।
এ প্যাভিলিয়নে আসা দর্শনার্থীদের নজর কেড়েছে ওয়ালটনের ল্যাপটপ। দ্বিতীয় তলায় ভিড় করা অধিকাংশ দর্শনার্থীই তরুণ-তরুণী। সবারই নজর ছিল ওয়ালটন ল্যাপটপে। দর্শনার্থীদের সামাল দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে ল্যাপটপ বিক্রয়কর্মীদের। দর্শনার্থীদের মধ্যে কেউ দাম জিজ্ঞেস করছে, কেউ বা ল্যাপটপের বিভিন্ন বিষয়ে জানতে চাচ্ছে। অনেকেই ল্যাপটপ পরখ করছেন।

ঢাকা কলেজের ছাত্র সোহেল রানা। প্রায় ১৫ মিনিট ধরে ওয়ালটন ল্যাপটপ ব্যবহার করে দেখলেন। ওয়ালটনের ল্যাপটপ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভালোই দেখলাম। অন্য ব্র্যান্ডের চেয়ে দাম কম। মডেল ও ডিজাইন ভালো।

রুবেল নামের একজন দর্শনার্থী বলেন, আমি বেশকিছু সময় ওয়ালটন ল্যাপটপ ব্যবহার করেছি। ভালো মনে হলো।

ওয়াটনের বিক্রয়কর্মী জিহাদুল ইসলাম জানান, স্বল্পমূল্যে শিক্ষার্থীদের জন্য আমারা ল্যাপটপ নিয়ে এসেছি। ওয়ালটনের ফ্রিজ, টিভিসহ অন্য পণ্যের প্রতি ক্রেতা-দর্শনার্থীদের আস্থা থাকায় ল্যাপটপেও আমরা সাড়া পাচ্ছি। শিক্ষার্থীসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষ ওয়ালটন ল্যাপটপ স্টলে ভিড় করছে। আমরা মেলায় এ পণ্যেও ব্যাপক সাড়া পেড়েছি। ২২ হাজার ৯৯০ টাকা থেকে শুরু করে ৮৯ হাজার ৯৯০ টাকায় ওয়ালটন ল্যাপটপ দিচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, মেলায় এ বছরই প্রথম ল্যাপটপ হাজির করেছি। প্রথম দিকে ল্যাপটপের প্রতি ক্রেতা-দর্শনার্থীদের নজর কম থাকলেও বর্তমানে এর চাহিদা অনেক বেশি।

জিহাদুল ইসলাম বলেন, কীবোর্ডে বাংলা লে আউট দেওয়া আছে। যারা বাংলায় লিখতে পারেন না, তারা বাংলা দেখে লিখতে পারবেন। প্রতিটি ল্যাপটপে অপারেটিং সিস্টেম উইনডোজ টেন দেওয়া আছে। এ ছাড়া প্রতিটি ল্যাপটপে HDM ক্যাবল আছে এবং SSD সাপোর্টেড। ব্যাটারির স্থায়ীত্ব বেশি। অন্তত ৫ থেকে ৬ ঘণ্টা ব্যাকআপ থাকে। দুই বছরের বিক্রয়োত্তর ওয়ারেন্টির সঙ্গে রয়েছে সারা দেশে সার্ভিসের সুবিধা।

জানা গেছে, মেলায় দুটি সিরিজির নতুন দুটি মডেলের ল্যাপটপ আনা হয়েছে। এর একটি প্যাশন সিরিজের, আরেকটি টামারিন্ড সিরিজের। মেলায় ওয়ালটন প্যাভিলিয়নের পাশাপাশি সারা দেশে সব ওয়ালটন প্লাজা ও ব্র্যান্ডেড আউলটলেটে পাওয়া যাচ্ছে নতুন মডেলের এই দুটি ল্যাপটপ।

টামারিন্ড সিরিজে WT14B71এ মডেলের ল্যাপটপে রয়েছে ৫০০ জিবি হার্ডডিস্ক ড্রাইভ, ৪ জিবি ডিডিআর৩ এল র‌্যাম। রয়েছে হাই ডেফিনিশন অডিও। মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২২ হাজার ৯৯০ টাকা। ৫ শতাংশ ছাড় দেওয়ার পরে দাম হয় ২১ হাজার ৮৪০ টাকা।
প্যাশন সিরিজের WP14B71S মডেলের ল্যাপটপে রয়েছে ৫০০ জিবি হার্ডডিস্ক ড্রাইভ, ৪ জিবি ডিডিআর৩ এল র‌্যাম। যা ল্যাপটপে প্রয়োজনীয় কাজ, ভিডিও ও মিউজিক চালানোর সময় অপারেটরকে দেবে উচ্চগতির রোমাঞ্চকর অনুভূতি। আরো রয়েছে ডিভিডি মাল্টি এবং হাইডেফিনিশন অডিও। দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ২৩ হাজার ৯৯০ টাকা। ৫ শতাংশ ছাড় দেওয়ার পরে দাম আসে ২২ হাজার ৭৯০ টাকা।

বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটন প্যাভিলিয়নের কো-অর্ডিনেটর শাহ শহীদ চৌধুরী বলেন, নতুন মডেলের ল্যাপটপগুলো স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের ব্যবহার উপযোগী। এগুলোর মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা অনায়াসেই প্রোগামিং, ওয়েব ডিজাইন, আউটসোর্সিং, বিভিন্ন অ্যাসাইনমেন্ট, প্রেজেন্টেশন এবং ডিজিটাল ই-বুকসহ অসংখ্য কাজ সম্পন্ন করতে পারবে।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের দীর্ঘদিনের চাহিদা ছিল বাজারে তাদের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে উচ্চমানের ল্যাপটপের। সাশ্রয়ী মূল্যে নতুন মডেলের দুটি ল্যাপটপ বাজারজাতকরণের মাধ্যমে তাদের দীর্ঘদিনের চাহিদা পূরণ করছে ওয়ালটন।

তিনি আরো বলেন, বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটন ল্যাপটপের সঙ্গে দেওয়া হচ্ছে নানা ধরনের আকর্ষণীয় উপহারসহ স্মার্ট ফোন ফ্রি। কেউ স্মার্ট ফোন না নিলে রয়েছে মোবাইলের সমপরিমাণ ক্যাশ ডিসকাউন্টের ব্যবস্থা। কোর আই থ্রি ল্যাপটপে ৫ শতাংশ মূল্য ছাড় দেওয়া হচ্ছে। কোর আই ফাইভ ও কোর আর সেভেনের যেকোনো মডেলের ল্যাপটপ কিনলে সেই সঙ্গে দেওয়া হচ্ছে একটি আকর্ষণীয় ওয়ালটন স্মার্ট ফোন (মোবাইলের মডেল- D8S I EF5)।

যদি কেউ মোবাইলে নিতে না চান তাহলে কোর আই ফাইভে ৭ শতাংশ এবং কোর আই সেভেনে ৯ শতাংশ মূল্য ছাড় দেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া সব ল্যাপটপের সঙ্গে উপহার হিসেবে দেওয়া হচ্ছে ব্যাকপ্যাক, ওয়ালেট (নারী/পুরুষ) ও কফি মগ।

উল্লেখ্য, ১ জানুয়ারি শুরু হওয়া এ মেলা চলবে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত। মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা রয়েছে। এবারের মেলায় প্রবেশমূল্য ধরা হয়েছে (পূর্ববর্তী তিন বছরের মতো) প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ৩০ টাকা এবং অপ্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ২০ টাকা।