ঢামেক থেকে সাজাপ্রাপ্ত আসামির পলায়ন

হাসপাতাল থেকে পালিয়ে গেছেন দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামি। তার নাম মো. সোহেল (৪০)। এ ঘটনায় দায়িত্বে থাকা দুই কারারক্ষীকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। মঙ্গলবার এ ঘটনা ঘটে।

সাজাপ্রাপ্ত আসামি পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় তোলপাড় শুরু হয় কারা কর্তৃপক্ষের মধ্যে। খবর পেয়ে হাসপাতাল পরিদর্শন করেন ডিআইজি (প্রিজন) তৌহিদুল ইসলাম ও সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির।

ডিআইজি তৌহিদুল ইসলাম বলেন, বাথরুম থেকে আসামি পালিয়ে গেছে। এ বিষয়ে দুই কারারক্ষী দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিয়েছেন। তাই কারারক্ষী আজিজুল হাকিম ও নজরুল মানিককে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ১৫ দিনের মধ্যে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। যেহেতু ঘটনাটি শাহবাগ থানা এলাকায় ঘটেছে তাই এ বিষয়ে শাহবাগ থানায় মামলা করা হবে বলে জানান তিনি।

জানা গেছে, সোহেলকে সোমবার বিকালে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার (কেরানীগঞ্জ) থেকে অসুস্থতাজনিত কারণে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ২১৭ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসা শেষে মঙ্গলবার দুপুরে তাকে ছাড়পত্র দেয়া হয়। হাসপাতালের বহির্বিভাগ দিয়ে যাওয়ার সময় টয়লেটে যেতে হবে বলে কর্তব্যরত প্রহরীদের জানায় সে। এসময় হ্যান্ডকাফ বাঁধা অবস্থায় বাথরুমে ঢুকে সোহেল।

অনেক সময় পেরিয়ে গেলেও সোহেল ফিরে না আসায় কারারক্ষীরা বাথরুমের দরজা খুলে দেখেন সে নেই। বাথরুমের ভেন্টিলেটর ভাঙা। ধারণা করা হচ্ছে ভেন্টিলেটর ভেঙে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার সংলগ্ন এলাকা দিয়ে পালিয়ে যায় সোহেল।

দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি সোহেলের বাড়ি কেরানীগঞ্জে। গত ১৪ই অক্টোবর মাদকসহ আটকের পর ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে দুই বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন। তাকে গ্রেপ্তার করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপরতা চালাচ্ছে।

 

You Might Also Like