ঢাকা বার নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্টতা পেয়েছে আওয়ামীপন্থীরা

ঢাকা আইনজীবী সমিতির ২০১৮-২০১৯ কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্টতা পেয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাদা পানেল। নির্বাচনে মোট ১৩টি সম্পাদকীয় পদের মধ্য সাধারণ সম্পাদক, সহ-সভাপতি ও ট্রেজারারসহ ৯টি পদে জয়লাভ করেছে সাদা প্যানেল।
অন্যদিকে, বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেল সভাপতিসহ মোট ৪টি সম্পাদকীয় পদে জয়লাভ করেছে।
এছাড়া ১৫টি সদস্য পদের মধ্য সাদা প্যানেল ৮টি এবং নীল প্যানেল ৭ সদস্য পদে জয় পেয়েছে।
আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাদা প্যানেলের নির্বাচিতরা হলেন- সাধারণ সম্পাদক পদে মো. মিজানুর রহমান মামুন, সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী শাহানারা ইয়াছমিন, সহ-সভাপতি পদে মো. রুহুল আমিন, ট্রেজারার পদে আরিফুর রহমান চৌধুরী সুমন, সিনিয়র সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মোস্তাফিজুর রহমান তালুকদার দিপু, সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মো. কামাল হোসেন পাটোয়ারী, দফতর সম্পাদক পদে আব্দুর রশিদ, লাইব্রেরি পদে এম মনিরুজ্জামান মানির।
বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেলের নির্বাচিতরা হলেন- সভাপতি পদে গোলাম মোস্তফা খান, সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে শাহনাজ বেগম শিরীন, সমাজকল্যাণ সম্পাদক পদে এম এ বি এম খায়রুল ইসলাম লিটন ও খেলাধূলা সম্পাদক পদে মোহাম্মাদ খলিলুর রহমান।
এর আগে ‘এশিয়ার বৃহত্তম বার’ খ্যাত ঢাকা আইনজীবী সমিতির ২০১৮-১৯ মেয়াদের নির্বাচনে মঙ্গল ও বুধবার দুই দিনব্যাপী ভোট গ্রহণ হয়। তবে সংঘর্ষের ঘটনায় ভোট গণনা স্থগিত করা হয়েছিল।
প্রথম দিন ৩ হাজার ৬৫২ ভোটার এবং দ্বিতীয় দিন ৫ হাজার ৩৫৯ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এতে দু’দিনে মোট ৮ হাজার ৯১১টি ভোট পড়ে।
নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের ব্যানারে ‘সাদা প্যানেল’ এবং বিএনপি সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেলের ব্যানারে ‘নীল প্যানেল’ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। ২৭টি পদের বিপরীতে মোট ৫৫ জন প্রার্থী ছিলেন।
ঢাকা আইনজীবী সমিতিতে নিবন্ধিত আইনজীবীর সংখ্যা প্রায় ২২ হাজার ২৪ জন হলেও বৈধ ভোটারের সংখ্যা ১৬ হাজার ১২৯ জন।
গত বছরের নির্বাচনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ২২ (মোট ২৭টি পদ) পদে জয়লাভ করে বিএনপি-জামায়াত সমর্থীত নীল প্যানেল।

You Might Also Like