ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন বার্সার প্রতিপক্ষ মালাগা

পয়েন্ট টেবিলের দুই নম্বরে থেকে মাঠে নামছে স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনা। অপেক্ষাকৃত দুর্বল দল মালাগার বিপক্ষে আতিথ্য নেবে দুরন্ত গতিতে এগিয়ে চলা কাতালানরা। শনিবার রাত নয়টায় শুরু হবে ম্যাচটি। মালাগার বিপক্ষে মাঠে থাকবেন লুইস এনরিকের তারকা প্রায় সব শিষ্যরাই।
ইনজুরিতে পড়ে কোপা দেল রের ম্যাচে ছিলেন না আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসি। নিষেধাজ্ঞার কারণে ছিলেন না উরুগুয়ের তারকা লুইস সুয়ারেজ। অ্যাতলেতিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে কোপা দেল রের সেমিফাইনালের প্রথম লেগে এ দুই তারকা না থাকলেও লা লিগার চলতি আসরের ম্যাচে মালাগার বিপক্ষে তাদের দুই জনেরই মাঠে অনেকটা নিশ্চিত। মালাগার বিপক্ষে মাঠে নামার আগে কাতালান শিবির দলে পাচ্ছে না অভিজ্ঞ জেরার্ড পিকেকে। এছাড়া পায়ে চোট রয়েছে অ্যালেক্সিজ ভিদালের। থমাস ভারমায়েলন আর জরদি আলবাকে নাও পেতে পারেন বার্সা কোচ লুইস এনরিক।
বর্তমান চ্যাম্পিয়ন দুর্দান্ত বার্সার সামনে মালাগার আত্মবিশ্বাসের ঘাটতি নেই। ঘরের মাঠে গত বছরের নভেম্বরের পর থেকে লা লিগার কোনো ম্যাচেই হারেনি দলটি। তবে, মুখোমুখি দেখায় মালাগা অনেক পিছিয়ে বার্সার থেকে। ক্যাম্প ন্যুতে লিগের ২০ ম্যাচের মাত্র একটি ম্যাচেই কাতালানদের হারায় মালাগা। বার্সা ১৭টি ম্যাচ জয়ের পাশাপাশি দুটি ম্যাচে ড্র করে। ২০০৩ সালের ডিসেম্বরে ঘরের মাঠে মালাগা সবশেষ ৫-১ গোলের বড় ব্যবধানে হারায় বার্সাকে। নিজেদের মাঠে ১৪ ম্যাচের বাকি আট ম্যাচে হেরেছে স্বাগতিকরা, আর ৫টি ম্যাচে ড্র করে তারা।
নিজেদের সবশেষ ৫ ম্যাচের ৫টিতেই জয় বার্সার। আর তিনটি জয়ের পাশাপাশি একটি করে ম্যাচে ড্র ও পরাজয় মালাগার। সবশেষ মুখোমুখি দেখায় ৫ ম্যাচের তিনটিতেই জিতেছে কাতালানরা, একটি ম্যাচে জয় পেয়েছে মালাগা আর একটি ম্যাচে ড্র করে দুই দল। এ ম্যাচে মাঠে নামার আগে বার্সা পয়েন্ট টেবিলের দুই নম্বরে রয়েছে। ১৯ ম্যাচে ৪৫ পয়েন্ট সংগ্রহ করেছে কাতালানরা। এক ম্যাচ বেশি খেলে সর্বোচ্চ ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ। আর ২০ ম্যাচে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তিন নম্বরে রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ।

You Might Also Like