ট্রাম্প-সমর্থক ও বিক্ষোভকারীদের মধ্যে সংঘর্ষ

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় ট্রাম্প-সমর্থক ও তার বিরোধীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ২১ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ১১ জন।

ট্রাম্প সমর্থকরা স্থানীয় সময় শনিবার বিকেলে ‘প্যাট্রিয়ট ডে’ পালন করার পরিকল্পনা করলে ট্রাম্পবিরোধীরা তার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করতে আগেভাগেই জড় হতে থাকে। ক্যালিফোর্নিয়ার বার্কলে শহরের সিভিক সেন্টার পার্কে হাজারো লোক জড় হতে থাকলে পুলিশ জালের বেষ্টনী দিয়ে তাদের আলাদা করে রাখতে চেষ্টা করে। কিন্তু দ্রুত দুই দলের মধ্যে মারামারি শুরু হয়ে যায়। পরে তা পার্ক ছাড়িয়ে রাস্তায় ছড়িয়ে পড়ে। ব্যাপক হাতিহাতি ও ধ্বস্তাধ্বস্তির ঘটনা ঘটে।

দুই পক্ষ পরস্পরকে লক্ষ্য করে বোতল, আঁতশবাজি, ট্রাফিক কাজে ব্যবহৃত মোচক, ময়লার বাক্স ছোঁড়ে। প্রচুর মরিচের স্প্রেও ব্যবহৃত হয়।

বিক্ষোভ ও সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ গ্যাস মাস্ক পরে মরিচের স্প্রে ও কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার করে। বাটর (বে এরিয়া র‌্যাপিড ট্রানজিট)- এর স্থানীয় স্টেশন বন্ধ ঘোষণা করা হয়। ছুরি, স্টান গান, পতাকাসহ হাতে ধরার পতাকাদণ্ড, হেলমেট, ব্যানার ইত্যাদি নিষিদ্ধ বস্তু জব্দ করে পুলিশ।

অন্তত সাতজন আহতকে হাসপাতালে পাঠানো হয়। একজন পুলিশ মরিচের স্প্রে বা কাঁদানে গ্যাসের কারণে আহত হন। একজন সমাবেশকারী ঝাঁঝালো স্পেপেতে আহত হন।

এর আগে ফেব্রুয়ারি মাসে বার্কলেতে ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ডানপন্থি বক্তা মিলো ইয়ানোপুলোসের বিরোধী বিক্ষোভে সহিংসতা হয়। মার্চে একই ধরনের ঘটনায় দুই পক্ষের অন্তত ১০ জন আটক হয়।

শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের দেড় শতাধিক শহরে বিক্ষোভ সমাবেশ করা হয়, ট্রাম্পবিরোধী ‘ট্যাক্স ডে’ হিসেবে। এর মূল লক্ষ্য হলো ট্রাম্পকে আয়কর বিবরণী প্রকাশ করতে বাধ্য করা। কিন্তু বার্কলে সমাবেশ ছিল শুধুই বাকস্বাধীনতার সমর্থনে।

You Might Also Like