ট্রাম্পের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা থাকবে কি না : শুনানি আজ

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জারি করা ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল হবে কি হবে না, তা নিয়ে আজ (মঙ্গলবার) পক্ষে-বিপক্ষে শুনানি হবে আপিল কোর্টে।

য্ক্তুরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞার প্রতি সমর্থন জানিয়েছে এবং বহালে আপিল কোর্টের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। ১৫ পৃষ্ঠার এক বিবৃতিতে আদালতকে বিচার বিভাগ বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি ‘প্রেসিডেন্টের কর্তৃত্বের আইনগত পদক্ষেপ’ এবং এটি মুসলিমদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা নয়।

বিবিসি ও রয়টার্স অনলাইনের এক খবরে মঙ্গলবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের নবম সার্কিট কোর্ট অব আপিলসে ১৫ পৃষ্ঠার ওই বিবৃতি জমা দেয় বিচার বিভাগ। তবে এবার তাদের সুর আগের চেয়ে অনেক নমনীয়। এতে জোর দিয়ে বলা হয়েছে, ট্রাম্পের জারি করা ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা মুসলিমদের বিরুদ্ধে নয়।

গত শুক্রবার জেলা জজ জেমস রবার্ট সিয়াটলে এক রায়ে ট্রাম্পের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা রোধ করেন এবং এর ফলে ক্ষতিগ্রস্ত সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের দুয়ার আবার খুলে যায়। তবে বিচারক রবার্টের রায় বাতিল চেয়ে আপিল করে বিচার বিভাগ। কিন্তু পূর্ণাঙ্গ শুনানি না হওয়া পর্যন্ত রায় বাতিলের আবেদন স্থগিত রাখেন আদালত।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের নবম সার্কিট কোর্ট অব আপিলসে ট্রাম্পের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা রাখা হবে কি হবে না, তা নিয়ে সরকার ও বিরোধী পক্ষের আইনজীবীদের যুক্তিতর্ক শোনা হবে।

সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা বা ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা রোধ করে দেওয়া রায়ে বিচারক জেমস রবার্ট বলেন, এটি যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান ও রাজ্যগুলোর স্বার্থের বিরোধী। এর ফলে মধ্যপ্রাচ্যের সিরিয়া, ইরাক, ইরান, ইয়েমেন ও আফ্রিকার লিবিয়া, সুদান ও সোমালিয়ার নাগরিকরা আবার যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের সুযোগ পান।

ট্রাম্পের হয়ে বিচার বিভাগ আদালতে যে যুক্তিগুলো নিয়ে লড়বে, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো : জাতীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রেসিডেন্টের সিদ্ধান্তই সর্বোত্তম। একে মুসলিমবিরোধী নিষেধাজ্ঞা বলা যাবে না, কারণ এ সাত দেশের সন্ত্রাসবাদের ঝুঁকি বিবেচনা করে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এ নির্বাহী আদেশ ‘ধর্মের দিক বিবেচনায় নিরপেক্ষ’।

You Might Also Like