ট্রাম্পের অভিশংসন তদন্ত নিয়ে প্রস্তাব কংগ্রেসে পাস

প্রেসিডেন্টকে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ইম্পিচ বা অভিশংসন করতে মার্কিন কংগ্রেসে বৃহস্পতিবার একটি প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। স্থানীয় সময় সকালে প্রস্তাবের পক্ষে ভোটাভুটি হয়। এরই মধ্যদিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন তদন্ত নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এগিয়ে গেল যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদ।

 

কংগ্রেসের ২৩২ সদস্যের মধ্যে ১৯৬ জন প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেন। এর মধ্য দিয়ে ট্রাম্পকে সাংবিধানিকভাবে ক্ষমতা থেকে সরানোর পথে আরও একধাপ এগিয়ে গেলো ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত কংগ্রেস। রেজুলেশনটি সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটে গৃহীত হলেও দু’জন ডেমোক্র্যাট সদস্য এ প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন।

 

বিপক্ষে ভোট দেয়া ওই দুই ডেমোক্র্যাট সদস্যের একজন নিউজার্সির জেফ ভ্যান ড্রু এবং অপরজন মিনেসোটার কলিন সি প্যাটারসন।

 

প্রস্তাব পাশের পর হাউসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘আমি জানি না কেন রিপাবলিকানরা এই সত্যকে সত্য হিসেবে মেনে নিতে ভয় পাচ্ছেন।’

 

পেলোসি একইসঙ্গে কংগ্রেসের সকল সদস্যকে আমেরিকার জনগণের সম্মানের স্বার্থে এই শুনানিতে অংশ নিয়ে সহায়তা করার আহ্বান জানিয়েছেন।

 

এদিকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অবশ্য এক টুইটে এটাকে আমেরিকার ইতিহাসে সবচেয়ে বড় তামাশা বলে উল্লেখ করেছেন।

 

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ, আগামী মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনকে কোণঠাসা করতে তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরুর জন্য ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির ওপর চাপ সৃষ্টি করেছেন ট্রাম্প। উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার জন্য ট্রাম্প ইউক্রেনকে দেওয়া মার্কিন সামরিক সহায়তা স্থগিত করার মতো ঘটনাও ঘটিয়েছেন। ফলে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে অভিশংসিত করতে তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছেন ডেমোক্র্যাট কংগ্রেস সদস্যরা।

 

চলমান অভিশংসন তদন্তের অংশ হিসেবে এরই মধ্যে অনেক গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষীর বক্তব্য শুনেছেন হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের ডেমোক্র্যাটরা। তবে তাঁদের শুনানি প্রকাশ্যে করা হয়নি। এবার প্রকাশ্য শুনানির পদক্ষেপ নিচ্ছেন ডেমোক্র্যাটরা।

 

এর মধ্যে গতকাল হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের রাশিয়াবিষয়ক অন্যতম বিশেষজ্ঞ টিম মরিসনের সাক্ষ্য দেওয়ার কথা। আগের সাক্ষীরা বলেছেন, ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে, সেটার ব্যাপারে মরিসনের ব্যক্তিগত জানাশোনা আছে। এদিকে সাক্ষ্যদানের আগের দিন বুধবার হঠাৎই পদত্যাগ করেন মরিসন।

 

প্রেসিডেন্টের প্রেস সেক্রেটারি স্টিফেন গ্রিসাম বলেন, ডেমোক্র্যাটরা আসলে ইম্পিচমেন্টের নামে প্রতিদিন সময় নষ্ট করছেন। এটা লজ্জাজনক। রিপাবলিকান কংগ্রেস সদস্য কেভিন ম্যাককেথ্রি বলেন, আগামী নির্বাচনে ব্যালটের মাধ্যমে ডেমোক্র্যাটরা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে হারাতে পারবে না বলেই ইম্পিটমেন্টের অপচেষ্টা করছে।

 

রেজুলেশন অনুসারে এবার ট্রাম্পবিরোধী ইম্পিচমেন্ট শুনানি অনুষ্ঠিত হবে প্রকাশ্যে। এদিকে অভিযোগ তদন্তে আগামী সপ্তাহে যাঁদের বক্তব্য শোনা হবে, তাঁদের তালিকা এবং সময় নির্ধারণের কাজটিও সেরে রেখেছেন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষের ডেমোক্র্যাটরা। সাক্ষীদের মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একজন হলেন ট্রাম্পের সাবেক জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন।

 

সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের ব্যাপারে সরাসরি তাঁর জানাশোনা আছে।

 

প্রেসিডেন্ট ট্র্যাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ, আগামী মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনকে কোণঠাসা করতে তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরুর জন্য ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির ওপর চাপ সৃষ্টি করেছেন ট্রাম্প। উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার জন্য ট্রাম্প ইউক্রেনকে দেওয়া মার্কিন সামরিক সহায়তা স্থগিত করার মতো ঘটনাও ঘটিয়েছেন। ফলে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে ইম্পিচ করতে তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছেন ডেমোক্র্যাট কংগ্রেস সদস্যরা।

 

চলমান ইম্পিটমেন্ট তদন্তের অংশ হিসেবে এরই মধ্যে অনেক গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষীর বক্তব্য শুনেছেন হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের ডেমোক্র্যাটরা। তবে তাঁদের শুনানি প্রকাশ্যে করা হয়নি। এবার প্রকাশ্য শুনানির পদক্ষেপ নিচ্ছেন তারা।

 

এর মধ্যে বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের রাশিয়া বিষয়ক অন্যতম বিশেষজ্ঞ টিম মরিসনের সাক্ষ্য দেওয়ার কথা। আগের সাক্ষীরা বলেছেন, ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে, সেটার ব্যাপারে মরিসনের ব্যক্তিগত জানাশোনা আছে। সাক্ষ্য দেয়ার আগের দিন বুধবার হঠাৎই পদত্যাগ করেন মরিসন।

You Might Also Like