টেন্ডার নিয়ে সংঘর্ষ : যুবলীগ কর্মীর পায়ের রগ কেটেছে আওয়ামী লীগের কর্মীরা

চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলা প্রকৌশল অফিসে দেড় কোটি টাকার কাজের টেন্ডার জমা দিতে গিয়ে আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। সংঘর্ষে যুবলীগ কর্মী জুয়েল মৃধার পায়ের রগ কেটে দিয়েছে আওয়ামী লীগের কর্মীরা বলে জানা গেছে। জুয়েলকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ভর্তি করা হয়েছে।

দুই গ্রুপের সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। ভাঙচুর করা হয়েছে উপজেলা প্রকৌশল অফিস।

সোমাবার দুপুর ১২টায় থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত দফায় দফায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ কর্মীদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

সূত্রে জানা গেছে, এডিবির অর্থায়নে জেলার হাইমচর উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় থেকে ৪৩টি প্রকল্পের কাজের টেন্ডার আহবান করা হয়। এশিয়ান ডেভলপমেন্ট ব্যাংক এডিবি’র সহায়তায় ৩০টি গভীর নলকূপ স্থাপন ও আরসিসি রাস্তা নির্মাণের জন্য ওই টেন্ডার আহবান করা হয়।

সোমাবার ছিলো কাজের টেন্ডার বিক্রির শেষ দিন। নিয়ম অনুয়ায়ী উপজেলা প্রকৌশলী এবং নির্বাহী প্রকৌশলী কার্যালয় থেকে টেন্ডার বিক্রির কথা থাকলে নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয়ে বিক্রির জন্য কোন দরপত্রই দেয়া হয়নি। সকাল থেকেই উপজেলা চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটওয়ারীর গ্রুপের ক্যাডাররা উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয়ে অবস্থান নিয়ে ঠিকাদারদের সিডিউল ক্রয় করতে বাধা দেয়। এর পরেই দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষে আহতরা হলেন জাহাঙ্গীর বেপারী, জুয়েল মৃধা, পলাশ, সোহাগসহ কমপক্ষে ২০ জন। আহত জুয়েল মৃধাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ভর্তি করা হয়েছে। এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী প্রবীর কুমার জানান, নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয়ে বিক্রির জন্য টেন্ডার সিডিউল পাঠানো সম্ভব হয়নি। দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আমার কার্যালয়ও ভাঙচুর করা হয় ।

উপজেলা চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটওয়ারী জানান, এ নিয়ে তুচ্ছ ঘটনা ঘটেছে। আমরা সমাধানের চেষ্টা করছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম শীর্ষ নিউজকে জানান, সংঘর্ষ ও ভাঙচুরের ঘটনা শুনেছি। কিন্তু আমি এ উপজেলা থেকে আজ বিদায় নিয়ে চলে যাচ্ছি তাই কোন ব্যবস্থা নিতে পারছি না।

You Might Also Like