টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা যুবক নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যদের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে সৈয়দ আলম (৩৫) নামে এক রোহিঙ্গা যুবক নিহত হয়েছেন।

বিজিবির দাবি, নিহত আলম মাদকপাচারকারি ও পুরনো রোহিঙ্গা। তিনি ১০-১২ বছর আগে সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরে নাইট্যংপাড়া এলাকায় বসবাস করছিলেন। তার বাবার না সৈয়দ আহমদ।

শনিবার রাত ১২টার দিকে উপজেলার হ্নীলা (উচ্চারণ-নীলা) ইউনিয়নের দমদমিয়া এলাকায় নাফ নদের তীরে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

বিজিবি টেকনাফ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল ফয়সল হাসান খান জানান, মিয়ানমার থেকে ইয়াবার চালান পাচারের গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দমদমিয়া কেয়ারিখাল এলাকায় নাফ নদের তীরে অবস্থান নেয় বিজিবির একটি দল।

এ সময় নদী সাঁতরে এক ব্যক্তিকে কূলে উঠতে দেখে বিজিবি সদস্যরা চ্যালেঞ্জ করেন। এর পরই সেখানে আগে থেকে ওঁৎপেতে থাকা সহযোগীরা বিজিবি সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করেন।

এতে দুই বিজিবি সদস্য আহত হন। বিজিবিও পাল্টা গুলিবর্ষণ করলে পাচারকারীরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ একজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

বিজিবি জানায়, নিহত যুবক পুরনো রোহিঙ্গা। ১০-১২ বছর আগে সৌদি আরব থেকে দেশে এসে নাইট্যংপাড়া এলাকায় বসবাস করতে থাকেন।

এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ৪০ হাজার ইয়াবা, একটি দেশীয় তৈরি এলজি ও এক রাউন্ড কার্টুজ উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

You Might Also Like