টেকনাফে ইয়াবা পাচারকারী ইসমাইল গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তিন সহযোগীসহ আটক

টেকনাফে শীর্ষ ইয়াবা পাচারকারী ইসমাইলকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তিন সহযোগীসহ আটক করেছে পুলিশ। এ সময় পাচারের কাজে নিয়োজিত একটি প্রাইভেটকার, তিন হাজার পিস ইয়াবা, একটি এলজি ও তিন রাউন্ড কার্তুজের গুলি উদ্ধার করা হয়।

মঙ্গলবার ভোরে টেকনাফ কক্সবাজার সড়কের হোয়াইক্যাং হাসাইন্নারটেক এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

জানা যায়, তালিকাভূক্ত শীর্ষ পাচারকারী প্রাইভেট কারযোগে ইয়াবাসহ আসছেন এমন গোপন সংবাদ পেয়ে হোয়াইক্যাং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মাসরুরুল হকসহ একদল পুলিশ সেখানে ওৎপেতে থাকে। ভোরে একটি প্রাইভেটকার ওই এলাকা দিয়ে দ্রুতবেগে কক্সবাজারের দিকে যেতে দেখে পুলিশ ব্যারিকেড দেয়। কিন্তু প্রাইভেটকারটি পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি ছুঁড়ে ব্যারিকেড ভেঙ্গে পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশও চার রাউন্ড পাল্টা গুলি ছোঁড়ে। একপযার্য়ে পাচারকারীরা প্রাইভেটকার ফেলে পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ পেছন থেকে ধাওয়া করে।

এরপর পায়ে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় শীর্ষ ইয়াবা পাচারকারী আব্দুল জলিল বর্মায়া জলিলের ছেলে মো. ইসমাইল (২৮) ও অপর তিন পাচারকারীকে আটক করে পুলিশ।

আটক অপর পাচারকারীরা হচ্ছে- চট্টগ্রামের পাঠানটুলির আব্দুল করিমের ছেলে ছৈয়দ হোসেন, চকরিয়া হারবাং এলাকার আলী হোসেনের ছেলে মো. মহিউদ্দিন ও টেকনাফ কুলাল পাড়ার আবুল কালামের ছেলে আখতার হোসেন।

এ সময় পাচারকারীদের কাছ থেকে একটি প্রাইভেটকার (চট্টমেট্টো-গ ১২-৭৮৯৬), দেশীয় তৈরি একটি বন্দুক, তিন রাউন্ড কার্তুজের গুলি ও তিন হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

এই বন্দুকযুদ্ধে বেলাল উদ্দিন ও আজিজুল ইসলাম নামে পুলিশের দুই সদস্যও আহত হয়ছে বলে জানা গেছে।

টেকনাফ মডেল থানার ওসি মো. মোক্তার হোসেন জানান, গুলিবিদ্ধ আটক ইয়াবা পাচারকারী ইসমাইলকে কক্সবাজার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

You Might Also Like