হোম » ঝিনাইদহে জঙ্গিবিরোধী অভিযান, দুটি সুইসাইডাল ভেস্ট উদ্ধার

ঝিনাইদহে জঙ্গিবিরোধী অভিযান, দুটি সুইসাইডাল ভেস্ট উদ্ধার

ঢাকা অফিস- মঙ্গলবার, মে ১৬, ২০১৭

বাংলাদেশের ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রাখা দুটি বাড়ির একটি থেকে দুটি সুইসাইডাল ভেস্ট (বোমাসহ কোমরে বাঁধার জন্য বেল্ট) উদ্ধার করা হয়েছে। আজ (মঙ্গলবার) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) কর্মকর্তা সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) আবুল কালাম আজাদ সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

৭ মে মহেশপুর উপজেলার বজরাপুর গ্রামে জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে তুহিন নামের এক জঙ্গি নিহত হন। আজ ঝিনাইদহ সদরের চুয়াডাঙ্গা গ্রামে নিহত জঙ্গি তুহিনের ভাই সেলিম হুসাইনের (৩৩) বাড়ি এবং তাঁর চাচাতো ভাই প্রান্ত হুসাইনের (১৭) বাড়িতে আজ সকাল ৭টার দিকে অভিযান শুরু হয়।

অভিযান শুরু আগে সকালে ঝিনাইদহ র‍্যাবের কমান্ডার মেজর মনির আহমেদ বলেন, ‘পুলিশ কতগুলো অপারেশন করল, ধরা পড়ল, আগেও ধরা পড়ছিল। ওই জঙ্গি সার্চেরই একটা পর্যায়ে গিয়ে আমরা কয়েক দিন ধরে এখনো এই আশপাশে ঝিনাইদহ শহরের ভেতরে আরো কিছু জঙ্গি আস্তানা, তাদের ডাম্পিং পয়েন্ট রয়েছে। কিছু একটা আছে এ রকম। সেটারই তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল নিশ্চিত হলাম মোটামুটি, এখনো নিশ্চিত হান্ড্রেড পার্সেন্ট যে এই দুইটা বাড়িতে যারা আছে, তারা জঙ্গিগুলোর সঙ্গে সম্পৃক্ত বা জঙ্গি কার্যক্রমের সঙ্গে সম্পৃক্ত। তাদের কাছে সম্ভবত কিছু এক্সপ্লোসিভ বা গানজাতীয় কিছু আছে। যেগুলো তারা হয়তো বা বাড়ির ভেতরে রাখছে অথবা মাটির নিচে পুঁতে রাখতে পারে বা আশপাশে কোনো বাড়িতেও লুকিয়ে রাখতে পারে। আমরা সব সম্ভাবনাই বিবেচনা করতেছি। সবগুলো আমরা যাচাই করে দেখতেছি।’

মেজর মনির বলেন, ‘এমন হতে পারে যে কিছুই নেই। সেটাও হইতে পারে। তো আপাতত কোনো রিকভারি না হওয়া পর্যন্ত আমরা কনফার্ম করে বলতে পারতেছি না যে, আদৌ এখানে কী জিনিস আছে বা কারা কিসের সঙ্গে সম্পৃক্ত। আমরা সন্দেহ করতেছি সেলিম ও প্রান্তকে।’

র‍্যাবের পক্ষ থেকে আরো বলা হয়েছে, ঝিনাইদহে জঙ্গি আবদুল্লাহ ও তুহিন নিহত হওয়ার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এ বাড়ি দুটির ওপর নজর রাখছিল। বাড়ি দুটির আশপাশে কাউকে ভিড়তে দেয়া হচ্ছে না।

সেলিমের বাবার নাম আত্তাবউদ্দিন ওরফে আতা ড্রাইভার আর প্রান্ত’র বাবার নাম মতিয়ার রহমান। প্রান্ত এবার এসএসসি পাস করেছে।