জয় পাওয়া অসম্ভব নয় : মুশফিক

সফরকারি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বৃষ্টি-বিঘ্নিত চট্টগ্রাম টেস্ট ড্রয়ের পর সিরিজ জয়ের স্বপ্ন দেখছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।

আজ (বুধবার) মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় টেস্ট উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘চট্টগ্রাম টেস্টে ভালো খেলায় আমাদের আত্মবিশ্বাস এখন তুঙ্গে। এই ধারাবাহিকতা ঢাকায় ধরে রাখতে পারলে আমাদের জয় পাওয়া অসম্ভব নয়। তবে কাজটা খুব কঠিন। কারণ, আমাদের প্রতিপক্ষ টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর দল।’

তিনি বলেন, গত টেস্টে আমরা প্রতিটি সেশনেই দাপট দেখিয়ে খেলেছি। সে দিক দিয়ে লক্ষ্য তো অবশ্যই ভালো করা। আমাদের বোলিং ইউনিটের ক্ষমতা আছে ওদের ২০ উইকেট নেওয়ার। সেটা করতে পারলে ফলাফলটা ভালো হতে পারে। ভালো ফলাফলটা আপনারা নিশ্চয় জানেন। বাংলাদেশ ১-০ ব্যবধানে সিরিজটি জিততেও পারে।’

তবে তিনি এও বলেন, ‘টেস্টে সাফল্য পাওয়া সহজ নয়। এর জন্য আমাদের টানা পাঁচ দিন প্রতিটি সেশনেই ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলতে হবে। তাহলেই ফল আমাদের পক্ষে আসতে পারে।’

শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের উইকেট নিয়ে কিছুটা যেন চিন্তিত বাংলাদেশের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান, ‘চট্টগ্রামে আমরা যে উইকেটে খেলেছি, তার সঙ্গে ঢাকার উইকেটের অনেক পার্থক্য। এখানকার উইকেট কিছুটা বাউন্সি। আবার স্পিনাররাও এখানে সহায়তা পাবে। এমন উইকেটে খেলা আমাদের জন্য নতুন চ্যালেঞ্জই বটে। তবে সব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আমরা প্রস্তুত।’

বাংলাদেশ দলের উজ্জ্বল পারফরম্যান্সের পেছনে তরুণ ক্রিকেটারদের বিশাল অবদান আছে বলে মনে করেন মুশফিক, ‘আমাদের দলে বেশ কয়েকজন তরুণ প্রতিভাবান খেলোয়াড় যোগ দিয়েছে। তাদের পারফরম্যান্সে পুরো দল উজ্জীবিত। এটা আমাদের জন্য প্লাস পয়েন্ট। আমার বিশ্বাস, তরুণদের ভালো খেলার ধারাবাহিকতা ভবিষ্যতেও বজায় থাকবে, যা দলকে আরো অনুপ্রাণিত করবে।’

আগামীকাল শুরু হতে যাওয়া দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টের একাদশে কোনো পরিবর্তন আসছে কিনা- জানতে চাইলে মুশফিকুর রহিম বলেন, ‘এ উইকেটে আমাদের সমন্বয়ে খুব বেশি পরিবর্তনের সম্ভাবনা আছে বলে মনে হয় না। কারণ, শেষ টেস্টে যে একাদশ খেলেছে, সবাই যার যার জায়গায় ভালো খেলেছে। সে দিক থেকে চিন্তা করলে পরিবর্তনের সম্ভাবনা কম। আবার আমাদের যেহেতু পাঁচজন স্পিনার আছে, একজন পেসার বা ব্যাটসম্যান একাদশে ঢুকেও যেতে পারে। আপাতত পরিবর্তনের কোনো চিন্তা নেই।’

টাইগার অধিনায়ক বলেন, ‘গত কয়েক ম্যাচ ধরে মুস্তাফিজ যেটা করে যাচ্ছে, সেটাই যেন বজায় রাখতে পারে। কেবল সে নয়, শহীদও খুব ভালো বোলিং করেছে। আশা করব, দুজন যেভাবে কাজ করে যাচ্ছে সেটা যেন ধরে রাখে। আর তাদের দারুণ বোলিংয়ে যেন আমাদের স্পিন বিভাগও সহায়তা পায়।’

টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বর দল দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এর আগে নয়বার মুখোমুখিতে সাতবার ইনিংস পরাজয়ের ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু দলটির বিপক্ষে ২-১ ম্যাচে ওয়ানডে সিরিজ জেতার পর থেকেই উজ্জীবিত টাইগাররা। বৃষ্টিবিঘ্নিত চট্টগ্রাম টেস্টে ভালো খেলায় স্বাগতিক দলের আত্মবিশ্বাসে অনেক বেড়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে শুরু হতে যাওয়া দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে তাই অনুপ্রাণিত সাকিব-মুশফিকরা। টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর দল দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে দেশের ক্রিকেটকে আরেক এগিয়ে নেয়ার স্বপ্নে বিভোর তারা।

You Might Also Like