জয় দিয়ে ইপিএল শুরু লিভারপুলের

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শুরুর ম্যাচই গোলা বন্যায় ভেসে গেল। ৯০ মিনিটজুড়ে টিভি স্ক্রিন থেকে চোখ সরাতে পারেনি কেউ।

খেলা শুরুর চতুর্থ মিনিটেই প্রথম গোলটি হয়। এরপর শেষতক দুই পক্ষের মিলিয়ে ৭ গোলে পরিপূর্ণতা পায় ইপিএলের নতুন মৌসুমের প্রথম ম্যাচ।

আর নিজেদের প্রথম ম্যাচেই দ্যুতি ছড়ালের লিভারপুলের সেরা তারকা মোহামেদ সালাহ। এই ৭ গোলের তিনটি এসেছে তার পা থেকেই।

মরুর ঈগলের হ্যাট্রিকে লিডস ইউনাইটেডকে হারিয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের নতুন মৌসুমে শুভ সূচনা করেছে অলরেডরা।

শনিবার রাতে নিজেদের মাঠ অ্যানফিল্ডে চ্যাম্পিয়নের মতোই খেলেছে লিভারপুল।

খেলা শুরুর তৃতীয় মিনিটেই প্যানাল্টি পায় লিভারপুল। ডি-বক্সে লিডস ডিফেন্ডার রবিন কোচের হাতে বল লাগলে বাঁশি বাজান রেফারি।

সুযোগ হাতছাড়া করেনি সালাহ। স্পট কিক থেকে গোলটি করেন সালাহ। লিড নিলেও তা শোধ করতে দেরি করেনি লিডস।

১২তম মিনিটে সমতায় ফেরান ইংলিশ উইঙ্গার জ্যাক হ্যারিসন। অবশ্য স্কোরবোর্ডে ১-১ কে বেশিক্ষণ দেখতে পায়নি সমর্থকরা।

২০তম মিনিটে ফের লিডসের শিবিরে হানা দেয় অলরেড। এন্ড্রু রবার্টসনের ক্রস থেকে বল পেয়ে গোলপোস্টের খুব কাছে থেকে হেডে জালে বল জড়ান ফন ডাইক।

এবারও বেশিক্ষণ ব্যবধান ধরে রাখতে পারেনি স্বাগতিক দল। ২-১ গোলে এগিয়ে যাওয়ার ১০ মিনিট পরেই লিডসকে সমতায় ফেরান ইংলিশ ফরোয়ার্ড জেমস ব্যামফোর্ড।

এবার লিড নেয়ার দায়িত্ব নেন সালাহ নিজেই। সেট পিস থেকে বল পেয়ে ডি-বক্সের মাঝামাঝি থেকে চমৎকার নৈপূণ্য দেখিয়ে গোল করেন মিসরীয় এই ফরোয়ার্ড। ৩-২ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় লিভারপুল।

দ্বিতীয়ার্ধে নেমে সেয়ানে সেয়ানে লড়াই চালিয়ে যেতে থাকে দুই দল। সমতায় ফিরতে মরিয়া হয়ে ওঠে লিডস। সফলও হয় তারা। ৬৬তম মিনিটে লিডসকে তৃতীয়রারের মতো সমতায় ফেরান পোলিশ মিডফিল্ডার মাতেউস।

খেলা তখন জমে ক্ষীর। দুই দলের সমর্থকদের ধারণা ছিল, ৩-৩ গোলেই পয়েন্ট ভাগাভাগিতে শেষ হতে যাচ্ছে ম্যাচটি।

কিন্তু না, নির্ধারিত সময়ের খেলা শেষ হওয়ার ২ মিনিট আগে পুরো চিত্র পাল্টে যায়। ডি-বক্সে লিভারপুলের ডিফেন্ডার ফাবিনহো ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টিন বাঁশি বাজান রেফারি। সফল স্পট কিকে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন সালাহ।

এই জয়সূচক গোলে ৪-৩ ব্যবধানে ম্যাচ নিজের করে নেয় ইয়ুর্গেন ক্লপের শিষ্যরা।

You Might Also Like