জে. রাহিলের কাছে পরমাণুর গোপন তথ্য; কেন তিনি সৌদি আরবে?

সৌদি নেতৃত্বাধীন কথিত ইসলামি সামরিক জোটের কমান্ডার হিসেবে পাকিস্তানের সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল রাহিল শরীফ দায়িত্ব নেয়ার প্রতিবাদে সরকারকে নাস্তানাবুদ করেছেন দেশটির সিনেট সদস্যরা।

তোপের মুখে পাক সরকারের পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা সারতাজ আজিজ সিনেটকে বলেছেন, বিভেদ সৃষ্টিকারী সৌদি জোট এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো রূপ পায় নি। তিনি বলেন, জোট গঠনের বিষয়ে এখনো টার্মস অব রেফারেন্স চূড়ান্ত করা হয় নি। বিষয়টি চূড়ান্ত করার জন্য সদস্য দেশগুলোর মধ্যে অবশ্যই বৈঠক হতে হবে কিন্তু আজ পর্যন্ত তাও সম্ভব হয় নি।

সারতাজ আজিজের এ বক্তব্যে অনেকটা আগুনে ঘি ঢালার পরিস্থিতি তৈরি করে। সিনেট সদস্যরা এ সময় তাকে প্রশ্নবানে বিদ্ধ করেন। তারা জানতে চান, যদি টার্মস অব রেফারেন্স চূড়ান্ত না হয় তাহলে জেনারেল রাহিল শরীফকে কেন সৌদি আরব পাঠানো হয়েছে?

সিনেট চেয়ারম্যান রাজা রব্বানি বলেন, জেনারেল রাহিল যদি সৌদি জোটের নেতৃত্ব না দেন তাহলে তিনি সেখানে কী জন্য রয়েছেন? তিনি আরো বলেন, জেনারেল রাহিল শরীফের কাছে দেশের পরমাণু কর্মসূচির বিষয়ে গোপন সব তথ্য রয়েছে। জেনারেল রাহিল সৌদি আরবে কী করবেন তা না জেনে সরকার তাকে কীভাবে সৌদি আরবে পাঠানোর কথা বিবেচনা করে?

রাজা রব্বানি বলেন, যদি সৌদি জোটের টার্মস অব রেফারেন্স পাকিস্তানের জাতীয় স্বার্থের অনুকূল না হয় তখন সরকার কী করবে? আপনারা তো আগেই জেনারেল রাহিলকে সৌদি আরবে পাঠিয়েছেন!

সিনিয়র সিনেটর ফরহাতউল্লাহ বাবর বলেন, জেনারেল রাহিল শরীফ কী অবসরে যাওয়ার আগে তার ইচ্ছার কথা ব্যক্ত করেছিলেন যে, তিনি চাকরি থেকে অবসর নেয়ার পর সৌদি আরবে চলে যাবেন? তিনি আরো প্রশ্ন করেন, অবসরে যাওয়ার ১০ মাস আগে জেনারেল রাহিল কেন ঘোষণা দিয়েছিলেন, চাকরির মেয়াদ বাড়ানোর কথা তিনি ভাবছেন না? তার সামনে যদি কোনো প্রস্তাব না থাকে তাহলে আগে থেকেই এ ধরনের ঘোষণা দেয়ার কী উদ্দেশ্য থাকতে পারে?

ইলিয়াস বিলুর নামে আরেক সিনিয়র সিনেটর বলেন, সৌদি জোটের টার্মস অব রেফারেন্স যদি ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের বিরুদ্ধে যায় তাহলে তা মেনে নেয়া হবে না। তিনি বলেন, পাকিস্তানে সাম্প্রদায়িক সহিংসতা তৈরি করে -এমন কোনো কিছু মেনে নেয়া হবে না। সাম্প্রদায়িক সহিংসতা হলে দেশ ধ্বংস হয়ে যাবে।

সৌদি জোটের প্রধান হিসেবে জেনারেল রাহিল শরীফের নিয়োগে পাকিস্তানের রাজনৈতিক অঙ্গনে প্রচণ্ড বিতর্ক সৃষ্টি করেছে। সংসদের চাপের মুখে সরকার বার বারই বলছে, জেনারেল রাহিল নিজের ইচ্ছায় সৌদি জোটের দায়িত্ব নিয়েছেন। কিন্তু সাবেক সেনাপ্রধানকে সৌদি যাওয়ার জন্য অনাপত্তি সার্টিফিকেট দিয়েছে সরকার। বিষয়টিতে পাক সিনেট ধারাবাহিকভাবে প্রতিবাদ করে আসছে এবং কয়েক দফায় সারতাজ আজিজকে সিনেটে তলব করা হয়েছে।

You Might Also Like