জীবিত নবজাতককে মৃত বলে বাক্সবন্দি!

চট্টগ্রাম মহানগরীর অভিজাত হাসপাতাল সিএসসিআর-এ এক চিকিৎসক দম্পতির নবজাতক শিশুকন্যাকে জীবিত অবস্থায় বাক্সবন্দি করে লাশ হিসেবে ফেরত দিলেন চিকিৎসকরা।

পরে এই শিশুটি অপর একটি হাসপাতালে এখন মুমূর্ষু অবস্থায় বেঁচে উঠেছে।

মৃত নবজাতকের মুখ দেখতে চেয়েই শিশুটিকে বাঁচিয়ে তুলতে সক্ষম হলেন মা ডা. রিদওয়ানা কাউসার তুষার।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার গভীর রাতে নগরীর প্রবর্তক মোড় এলাকার সিএসসিআর হাসপাতালে।

জীবিত শিশুকে মৃত বলে ঘোষণা দিয়ে প্লাস্টিকের প্যাকেট বন্দি করে মায়ের কাছে ফেরত দেওয়া এবং ডেথ সার্টিফিকেট দেওয়ার বিষয়টি চট্টগ্রামে ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

বেঁচে ওঠা শিশুটির পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সোমবার দিবাগত রাত একটার দিকে সিএসসিআর হাসপাতালে ডা. রিদওয়ানা কাউসার তুষার একটি মেয়ে সন্তান প্রসব করেন। শিশুটি জন্ম নেওয়ার মাত্র দুই ঘণ্টার মধ্যে নবজাতককে মৃত ঘোষণা করে ডেথ সার্টিফিকেট দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। একই সময়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মৃত্যুসনদ দিয়ে শিশুটিকে একটি প্লাস্টিকের প্যাকেটে বন্দি করে মায়ের কাছে ফেরত দেয়।

কিন্তু মায়ের মন বলে কথা। কিছুক্ষণ আগে যে শিশুকে জন্ম দিয়েছে রিদুয়ানা সেই মৃত শিশুটি মুখ দেখতে চেয়েছেন তিনি। ডা. রিদুয়ানা সনদ ও শিশু বন্দির বাক্সটি হাতে পেয়েই কসটেপ খুলে শিশুটিকে মুক্ত করেন।

এই সময় তিনি দেখতে পান শিশুটির দেহে প্রাণ রয়েছে এবং আলতো নড়াচড়া করছে। একজন চিকিৎসক হিসেবে ডা. রিদুয়ানা নিজেই বুঝতে পারেন শিশুটি বেঁচে আছে।

এ সময় তিনি দ্রুত হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসকদের বিষয়টি জানান। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাৎক্ষণিক ছুটে এলেও তারা তাদের সিদ্ধান্তে অটল থাকেন। বাচ্চাটি মৃত বলেই তারা সিদ্ধান্ত জানান।

কিন্তু ডা. রিদুয়ানা নিশ্চিত তার শিশু বেঁচে আছে। তিনি দ্রুত শিশুটিকে নিয়ে পার্শ্ববর্তী চাইল্ড কেয়ার হাসপতালে ছুটে যান। ওই হাসপাতালে নবজাতককে ওয়ার্মারে রাখার পর শিশুটির মধ্যে স্বাভাবিক প্রাণ ফিরে আসে।

এ ব্যাপারে সিএসসিআর মেডিক্যাল অফিসার তানভীর জাফরের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করা হলে তিনি সংবাদিক শুনে ফোন কেটে দেন। -রাইজিংবিডি ডট কম

You Might Also Like