হোম » জামায়াতের আমিরসহ ৮ নেতা রিমান্ডে, প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার হরতাল

জামায়াতের আমিরসহ ৮ নেতা রিমান্ডে, প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার হরতাল

ঢাকা অফিস- Wednesday, October 11th, 2017

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমির মকবুল আহমদ, সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানসহ আট নেতাকে রিমান্ডে নেয়ার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া, আগামীকাল (বুধবার) সারা দেশে বিক্ষোভ সমাবেশ ও শুক্রবার নেতাদের মুক্তির দাবিতে দোয়া মাহফিল করবে দলটি।

জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমান আজ (মঙ্গলবার) রাতে এক বিবৃতিতে এ কমসূচি ঘোষণা করেন। সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বিবৃতিতে বলেন, “সরকার বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীসহ সকল বিরোধী দলকে নেতৃত্ব শূন্য করে দেশকে একদলীয় শাসনের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে গত ৯ অক্টোবর রাতে জামায়াতে ইসলামীর নেতাদের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে তাদের বিরুদ্ধে সাজানো মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদের প্রত্যেককে ১০ দিনের রিমাণ্ডে নেয়া হয়েছে। সরকারের এ ধরনের অন্যায়, অগণতান্ত্রিক ও স্বৈরাচারী আচরণের নিন্দা জানানোর কোন ভাষা নেই। সরকারের এ অন্যায় ও অমানবিক আচরণে আমরা বিস্মিত ও মর্মাহত।”
বিবৃতিতে বলা হয়, “সরকার একে একে দেশের সকল সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে অকার্যকর করে দিচ্ছে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সরকারের জুলুম-নির্যাতনের হাতিয়ারে পরিণত হয়েছে। সরকার বিচার বিভাগের স্বাধীনতাও হরণ করেছে। দেশে গণতন্ত্র, মানবাধিকার, আইনের শাসন ও ন্যায় বিচার বলতে কোন কিছু আর বাকী নেই। দেশের জনগণ অসহায় হয়ে পড়েছে।”

প্রসঙ্গত, গোপনে বৈঠক করে নাশকতার পরিকল্পনা করার অভিযোগে গতকাল (সোমবার) রাতে রাজধানীর উত্তরার একটি বাসা থেকে মকবুল আহমদসহ আটজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। গত ৩০ সেপ্টেম্বর কদমতলী থানায় দায়ের করা বিশেষ ক্ষমতা আইনের দুই মামলায় আজ তাঁদের আদালতে হাজির করা হয়। কদমতলী থানার পরিদর্শক মো. সাজু মিঞা দুই মামলায় জামায়াতের আমির মকবুলসহ আটজনকে হাজির করে ১০ দিন করে ২০ দিন রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম গোলাম নবী জামায়াতের আমির মকবুল আহমদসহ আট নেতাকর্মীর পাঁচদিন করে ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মামলার অপর আসামিরা হলেন- জামায়াতের নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার, সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমান, তার ব্যক্তিগত সহকারী নজরুল ইসলাম, চট্টগ্রাম মহানগর আমির মোহাম্মদ শাজাহান, সেক্রেটারি নজরুল ইসলাম, দক্ষিণ জেলার আমির জাফর সাদেক ও সাইফুল ইসলাম।