‘জাপার মন্ত্রিসভায় থাকা-না থাকা নিয়ে সিদ্ধান্ত অচিরেই’

জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির সিনিয়র প্রেসিডিয়াম সদস্য রওশন এরশাদ বলেছেন, ‘জাতীয় পার্টি (জাপা) মন্ত্রিপরিষদে থাকবে কিনা সে বিষয়ে অচিরেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

 

সোমবার সকাল ১১টায় সংসদ ভবনের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলন রওশন এরশাদ এসব কথা বলেন।
তিনি আরো ‘বর্তমানে দেশে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি হয়েছে। নির্বাচনের এক বছর পূর্তি উপলক্ষে আমরা এখানে হাজির হয়েছি। আপনারা জানেন, ২০১৩ সালে কী পরিস্থিতি হয়েছিল। কী পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে আমরা নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। আমরা যদি নির্বাচনে অংশ না নিতাম, তাহলে দেশে অনির্বাচিত সরকার ক্ষমতায় আসত।’

 

দশম সংসদ নির্বাচনের এক বছর পূর্তি উপলক্ষে এক বছরে রাজনীতি, সংসদে বিরোধী দল হিসেবে জাতীয় পার্টির ভূমিকা সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরেন রওশন এরশাদ।

 

জাতীয় পার্টি দেশে শান্তি ফিরিয়ে এনেছে দাবি করে বিরোধী দলীয় নেতা বলেন, `২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচন না হলে দেশে সংঘাতময় পরিস্থিতি সৃষ্টি হত। এজন্যই নির্বাচনে অংশ নেয় জাতীয় পার্টি (জাপা)। গত ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের পরে দেশে শান্তি ফিরে এসেছে।’

 

তিনি বলেন, `২০১৩ সালে হরতাল অবরোধে ৪০০ লোক মারা গেছে। পেট্রলবোমায় ১৪০০ লোক আহত হয়েছে। আন্দোলনের নামে হরতাল-অবরোধ দিয়ে পেট্রলবোমা দিয়ে মানুষ মারা হচ্ছিল। নানা ধরনের হয়রানির শিকার হচ্ছিল জনগণ। দেশে শান্তি ফিরিয়ে আনতে ও গণতন্ত্রের ধারা অব্যাহত রাখতে সে সময় নির্বাচন ছাড়া গতি ছিল না।’
রওশন এরশাদ বলেন, `তৎকালীন বিরোধী দল বিএনপি আন্দোলনে জনগণকে সম্পৃক্ত করতে পারেনি। পারলে আন্দোলন ভিন্নভাবে হতো। আলাপ-আলোচনার মাধ্যমেও নির্বাচন করার চেষ্টা করা হয়েছে, কিন্তু তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেতা আলোচনায় আসেননি। সে সময় যেভাবে আন্দোলন শুরু হয়েছিল, তাতে করে হরতাল, অবরোধ, পেট্রলবোমাসহ নানা ধরনের হয়রানির শিকার হচ্ছিল জনগণ। বিশ্বাস করা যায় না, একজন মানুষ কীভাবে অন্য একজনকে এভাবে নৃশংসভাবে মারতে পারে।’

 

বিরোধী দল হিসেবে জাপা সঠিক দায়িত্ব পালন করছে দাবি করে রওশন বলেন, ‘অতীতে দেখা গেছে, বিরোধী দল সরকারের বিরোধিতা করতে লেগে যায়। হরতাল, জ্বালাও-পোড়াও করে। কিন্তু বর্তমান বিরোধী দল সরকারকে সহযোগিতা করবে, এটাই সংসদীয় গণতন্ত্র। আমরা সেটাই করে আসছি। অতীতের বিরোধী দল বেশিরভাগ সংসদ অধিবেশন বর্জন করেছে। আমরা সংসদ বর্জন করিনি, অকথ্য ভাষায় কথা বলিনি, ফাইল ছুড়িনি।

 

এ সময় জাতীয় পার্টির বিরোধী দলীয় হুইপ তাজুল ইসলাম, সংসদ সদস্য রুহুল আমি হাওলাদার, কাজী ফিরোজ রশীদ, বিরোধী দলীয় নেতার উপদেষ্টা গোলাম মসীহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

You Might Also Like