ছাত্রীকে ১২ লাখ টাকায় কিনে বিয়ে!

১২ লাখ টাকা দিয়ে দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে কিনে তারপর বিয়ে করলেন এক রাজনৈতিক নেতার ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের তামিলনাড়ুর কাড্ডালোরে৷

 

১২ লাখ টাকা দিয়ে কিনে নেওয়ার পর, দুই পরিবারের সামনেই দুই সন্তানের বাবা বিপত্মীক বাবুর সঙ্গে মেয়েটির বিয়ে হয়৷ দু`পক্ষের আর্থিক ব্যবস্থাপনায় সবটাই উতরে গিয়েছিল, কিন্তু হঠাৎ নিজের মেয়েকে ফেরত চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন মেয়েটির মা অখিলা৷

 

অখিলা (আসল নাম নয়) মাদ্রাস হাইকোর্টে হেবিয়াস করপাস মামলা করে মেয়েকে আদালতে তোলার আবেদন করেছেন৷ পেশায় আইনজীবী অখিলার বক্তব্য, মামলা মোকদ্দমার কারণে স্থানীয় এক রাজনৈতিক নেতার ছেলে বাবু তাদের বাড়িতে আসতেন৷ সেখানে তাদের মেয়েকে দেখে৷ তারপর বাবু তার ও তার স্বামী আদেশের উপর চাপ সৃষ্টি করে মেয়েকে বিয়ে দেওয়ার জন্য৷ অখিলার অভিযোগ, আত্মহত্যার হুমকি দিয়ে বাবু তাদের উপর চাপ সৃষ্টি করে৷ মেয়েকে তার সঙ্গে বিয়ে দিলে ১২ লাখ টাকার সম্পত্তি দেওয়ার কথাও বলেন।

 

একপ্রকার চাপে পড়েই তারা প্রাথমিকভাবে বাবুর শর্ত মেনে নেন বলে দাবি করেছেন অখিলা৷ অন্যদিকে, অখিলা ও আদেশের মেয়ে জানিয়েছে, তার বাবা-মা টাকার লোভে এই বিয়ে দিতে রাজি হয়েছেন।

 

বিয়ের পর অখিলা ও আদেশ জানতে পেরেছিলেন বাবুর আগের পক্ষের স্ত্রীর দুই সন্তান আছে৷ তারপরই আচমকা আদালতের দ্বারস্থ হন অখিলা৷

 

কাড্ডালার জেলার সমাজকল্যাণ দফতরের এক কর্মকর্তা জানান, অভিযোগ পেয়ে তিনি ছেলেটির বাড়িতে তদন্তে গিয়েছিলেন৷ কিন্তু মেয়েটির উপর কোনো নির্যাতন হয়েছে বা তিনি খারাপ রয়েছেন এমন প্রমাণ পাননি৷ তাছাড়া সে নাবালিকা তার প্রমাণও পাননি তিনি৷ তবে পরবর্তীকালে মেয়েটির মা বার্থ সার্টিফিকেট জমা দেওয়ার পর পুলিশের সাহায্যে তাকে উদ্ধার করে আনা হয়৷ শীঘ্রই তাকে জেলা শিশুকল্যাণ দফতরে নিয়ে এসে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে৷

You Might Also Like