হোম » চল চল ফ্লোরিডা চল : ‘মায়ামী ফোবানা ২০১৭’ স্বাতিক কমিটির জনসংযোগ মতবিনিময় সভা ওয়াশিংটনে

চল চল ফ্লোরিডা চল : ‘মায়ামী ফোবানা ২০১৭’ স্বাতিক কমিটির জনসংযোগ মতবিনিময় সভা ওয়াশিংটনে

admin- Friday, July 21st, 2017

শিব্বীর আহমেদ, ওয়াশিংটন : উত্তর আমেরিকায় বসবাসরত বাংলাদেশিদের সবচেয়ে বড় সংগঠন ফেডারেশন অফ বাংলাদেশি অ্যাসোসিয়েশন্স ইন নর্থ আমেরিকা (ফোবানা)। আগামী অক্টোবর মাসের ৬,৭ ও৮ তারিখ শুক্র, শনি ও রবিবার ফ্লোরিডার মায়ামী শহরে মায়ামী হায়াত রিজেন্সী হোটেলে অনুষ্ঠিত হবে ”ফোবানার ৩১তম সম্মেলন ২০১৭”। বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ফ্লোরিডার আয়োজনে অনুষ্ঠিতব্য এই সম্মেলনকে সফল ও স্বার্থক করার জন্য গত ২০ জুলাই বৃহষ্পতিবার ওয়াশিংটনে আসেন ৩১তম ফোবানা সম্মেলনের স্বাগতিক কমিটির নেতৃবৃন্দ। নেতৃবৃন্দের মধ্যে ছিলেন ৩১তম কনভেনার এম রহমান জহির, সদস্য সচিব আরিফ আহমেদ আশরাফ, প্রধান সমন্বয়কারী আতিকুর রহমান আতিক।

‘চল চল ফ্লোরিডা চল’, চল চল ৩১তম ফোবানা সম্মেলনে চল” শ্লোগানে একইদিন সন্ধ্যায় ভার্জিনিয়ার টাইসন্স কর্ণার শেরাটন হোটেল বলরুমে বৃহত্তর ওয়াশিংটনের ফোবানা লাভারদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় মিলিত হয় ৩১তম ফোবানা সম্মেলনের স্বাগতিক কমিটির নেতৃবৃন্দ। কনভেনার এম রহমান জহিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই মতবিনিময় সভা পরিচালনা করেন সদস্য সচিব আরিফ আহমেদ আশরাফ।

ওয়াশিংটনের মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন স্বাগতিক কমিটির কনভেনর এম রহমান জহির, সদস্য সচিব আরিফ আহমেদ আশরাফ, প্রধান সমন্বয়ক আতিকুর রহমান, ফোবানা এক্সিকিউটিভ কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন, গুডউইল ও প্রমোশন চেয়ারম্যান আবীর আলমগীর, কো-কালচারাল চেয়ারম্যান নাজমুন নাহার ইউনা, ইসি মেম্বার এটিএম আলম, ইসি মেম্বার নুরুল আমিন নুরু, ইসি মেম্বার জিআই রাসেল। এছাড়াও কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ড. আনোয়ারুল করিম, করিম সালাহউদ্দিন, আবু মোহাম্মদ রুমি, আক্তার হোসাইন, সৈয়দ বাহারুজ্জামান, আবুল কালাম আজাদ, তোফায়েল আহমেদ, নিজাম আহমেদ, মোহাম্মদ ইসলাম, দস্তগির জাহাঙ্গীর, দিপক বড়–য়া, ড. আব্দুস সাত্তার, কাজী এম রহমান, এজিএম হোসাইন, মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, সাদেক মোহাম্মদ খান, আনোয়ার হোসাইন, শামসুদ্দিন মাহমুদ, তালহা রহমান, ফাহমিদা আক্তার শম্পা, সুলতানা আহমেদ, মারিয়াম হোসাইন, কবির পাটোয়ারী, মোহাম্মদ মোস্তফা, রুখসানা পারভীন, পারভীন পাটোয়ারী, নেসার আহমেদ, রফিকুল ইসলাম আকাশ, মিসেস তৌহিদা সুলতানা, পাপিয়া সুলতানা, মোশাররফ হোসেইন, এলিসা গোমেজ, আতিকুর রহমান, এমডি মাহবুব আলম, নাসরিন আহমেদ, কামরুন কণা, জাহিদ চৌধুরী, ফাতেমা বিশ্বাস, বিউটি করিম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন স্থানীয় শিল্পী সুকণ্ঠী মিলি গোমেজ, বাবু ও রুমি। অনুষ্ঠানে উত্তর আমেরিকা এন টিভির কর্নধার মোহাম্মদ হোসেন বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন করিম সালাহউদ্দিন। অনুষ্ঠানের সার্বিক পরিচালনায় ছিলেন ইন্টারস্টেট চেয়ারম্যান শরাফত হোসেন বাবু।

মতবিনিময় সভায় ৩১তম ফোবানার সদস্য সচিব আশরাফ জানান, আসন্ন ফোবানায় অংশগ্রহণের জন্য সকল পর্যায়ের বুদ্ধিজীবী, শিল্পী, কলাকুশলীদের সাথে যোগাযোগ এবং কনট্রাক্ট প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। তাঁরা জানান, এবারের ফোবানায় দেশবরেণ্য শিল্পী, বুদ্ধিজীবী, উত্তর আমেরিকার বিভিন্ন সংগঠন অংশগ্রহণের কথা জানিয়েছেন ইতিমধ্যে। এছাড়াও  বিভিন্ন স্টেট থেকে শত শত প্রবাসী বাংলাদেশী ফ্লোরিডা, মায়ামীর হায়াত রিজেন্স হোটেলে অনুষ্ঠিতব্য ফোবানায় আসার পরিকল্পনা করছেন বলে জানান তারা। এদিকে, ‘৩১তম বাংলাদেশ সম্মেলন’ সংগঠনটির নেতারা গত ১৮ ও ১৯ জুলাই নিউ ইয়র্ক সিটির বিভিন্ন সংস্থা ও সংগঠনের সাথে মতবিনিময় করেন।

২১ জুলাই শুক্রবার ৩১তম ফোবানার স্বাগতিক কমিটির নেতৃবৃন্দ ওয়াশিংটনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দীনের সাথে এক বৈঠকে মিলিত হন। বৈঠকে নেতৃবৃন্দ রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দীনকে ৩১তম ফোবানা সম্মেলনে অতিথি হিসাবে আমন্ত্রণ জানান। এছাড়া সম্মেলনে কনস্যুলার সার্ভিস প্রদানের জন্য রাষ্ট্রদূতকে অনুরোধ জানান।

উল্লেখ্য, আগামী অক্টোবরের ৬ থেকে ৮ তারিখ পর্যন্ত ফ্লোরিডা রাজ্যের মায়ামি শহরের হায়াত রিজেন্সি হোটেলে তিনদিন ব্যাপী ফোবানা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। শতাধিক সংগঠনের ১০ হাজারেরও বেশি প্রবাসীর সমাগম ঘটানোর চেষ্টা চলছে এবারের সম্মেলনে। নিউ ইয়র্কের মতবিনিময় সভায় নেতাদের মধ্যে ছিলেন ফোবানার সাবেক তিন চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান, মীর চৌধুরী এবং নাহিদ চৌধুরী মামুন। এছাড়াও ছিলেন আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক এম রহমান জহীর, সদস্য-সচিব আরিফ আহমেদ আশরাফ, ফোবানার শুভেচ্ছা দূত আবির আলমগীর। মতবিনিময়ে আয়োজকরা জানান, গত ৩০ বছরের ঐতিহ্যের আলোকে আসন্ন বাংলাদেশ সম্মেলনের কর্মসূচিতে প্রবাস প্রজন্মকে বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।

মার্কিন রাজনীতিতে প্রভাবশালীদের আমন্ত্রণ জানানোর পাশাপাশি বাংলাদেশের রাজনীতিক, কবি, সাহিত্যিক, সাংবাদিক এবং সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বরাও থাকবেন বিভিন্ন ফোরামে আলোচনায় যোগ দিবেন বলে জানান বাংলাদেশী কমিউনিটিতে। গত ১৮-১৯ জুলাই নিউইয়র্ক এবং ২০ জুলাই, বৃহস্পতিবার ওয়াশিংটন ডিসিতে ফোবানা হোস্ট কমিটির সিনিয়র নেতৃবৃন্দ স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ এবং প্রবাসী বাংলাদেশীদের সাথে ব্যাপক জনসংযোগ করেন। ওয়াশিংটনের মতবিনিময় সভায় হোস্ট কমিটির নেতৃবৃন্দ নতুন প্রজন্মদের আকর্ষণ করার লক্ষ্যে চমক কিছু প্রোগ্রাম নিয়ে আলোচনা করেন। স্কলারশিপ, এওয়ার্ড, সায়েন্স ফেয়ার, আইটি ফেয়ার, ইসলাম বিষয়ক সেমিনারসহ আরো বেশ কিছু আকর্ষণীয় প্যাকেজ নিয়ে আলোচনা করেন এম রহমান জহির, আরিফ আহমেদ আশরাফ ও আতিকুর রহমান। উইক ডে হওয়া সত্বেও ওয়াশিংটনের উক্ত মতবিনিময় সভায় ব্যাপক জনসমাগম ঘটে।

‘মানবতার জন্য ঐক্য’ শ্লোগান নিয়ে ৩১তম ফোবানা সম্মেলন আগামী ৬, ৭ ও ৮ অক্টোবর মায়ামী ফ্লোরিডার হায়াত রিজেন্সী হোটেলে অনুষ্ঠিত হবে। ফোবানার শীর্ষ পর্যায়ের আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয় যে, এবারের ফোবানা অন্যান্য বছরের ফোবানা থেকে ব্যাতিক্রম করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। ফোবানা হোস্ট কমিটির আহবায়ক এম. রহমান জহির এবং সদস্য সচিব আরিফ আহমেদ তারা।এবারের সম্মেলনে বাঙালি, বাংলাদেশ এবং প্রবাসের নানা-সমস্যার পরিপ্রেক্ষিতে বিভিন্ন সেমিনার-সিম্পোজিয়াম থাকবে। দলমত নির্বিশেষে সকল প্রবাসী যাতে সপরিবারে নির্মল আনন্দদায়ক একটি পরিবেশে ৩টি দিন অতিবাহিত করতে পারেন-সে খেয়ালও রয়েছে আয়োজকদের। জনসংযোগের ধারাবাহিকতা হিসেবে ২০-২১ জুলাই তারা ওয়াশিংটন ডিসিতে মতবিনিময় করবেন বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার লোকজনের সাথে। গত বছর ফোবানার ৩০ তম বাংলাদেশ সম্মেলন হয়েছে ওয়াশিংটন ডিসিতে।

ফোবানা এক্সিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান পদে

প্রার্থীতা ঘোষণা করলেন আতিকুর রহমান আতিক

ফোবানা এক্সিকিউটিভ কমিটির ২০১৭-১৮ মেয়াদেও চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীতা ঘোষণা করলেন ৩১তম ফোবানা সম্মেলনের প্রধান সমন্বয়ক আতিকুর রহমান আতিক। ফোবানা ভেটারান হিসাবে পরিচিত দুই দইবারের সফল কনভেনার ও প্রাক্তন চেয়ারম্যান এবং বর্তমানে ফোবানা এক্সিকিউটিভ কমিটির সদস্য আতিকুর রহমান আতিক শুক্রবার দুপুরে ওয়াশিংটনের একটি রেষ্টুরেন্টে এই ঘোষণা দেন। এই সময় উপস্থিত ছিলেন ৩১তম ফোবানা সম্মেলনের কনভেনার এম রহমান জহির, সদস্য সচিব আরিফুর রহমান আশরাফ, মিডিয়া প্রেস কমিটির চেয়ারম্যান শিব্বীর আহমেদ, ইন্টারষ্টেট কমিটির চেয়ারম্যান শরাফত হোসাইন বাবু, এক্সিকিউটিভ কমিটির সদস্য জি আই রাসেল, আবীর আলমগীর, এনটিভি উত্তর আমেরিকা প্রধান মোহাম্মদ হোসাইনসহ আরো অনেকে।

নিজের প্রার্থীতা ঘোষণা করে আতিকুর রহমান আতিক উপস্থিত সবার সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি বলেন, বিভিন্ন ষ্টেটের বিভিন্ন ষ্টেটের সংগঠনের প্রতিনিধিদের অনুরোধে ফোবানা এক্সিকিউটিভ কমিটি ২০১৭-১৮ মেয়াদের চেয়ারম্যান পদে আমি আমার প্রার্থীতা ঘোষণা করছি এবং সবার সহযোগিতা কামনা করছি। সবার সহযোগিতা ও সমর্থন পেলে ইনশাল্লাহ আগামী ২০১৭-১৮ মেয়াদে চেয়ারম্যান পদে বিজয় লাভ করতে পারব বলে আমি বিশ্বাস করি। এ সময় উপস্থিত সবাই চেয়ারম্যান পদে আতিকুর রহমান আতিকের বিজয় ছিনিয়ে আনার জন্য সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

লাকসামকে জেলা করার দাবীতে পরিকল্পনা মন্ত্রীর নিকট স্বারকলিপি প্রদান

লাকসামকে জেলা করার দাবীতে বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামালকে স্বারকলিপি প্রদান করেছে লাকসাম জেলা বাস্তবায়ন পরিষদ যুক্তরাষ্ট্র শাখা। “দারিদ্র্য নির্মূল এবং পরিবর্তিত বিশ্ব ব্যবস্থায় সমৃদ্ধি নিশ্চিত করা প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট বা এসডিজি বাস্তবায়নের অগ্রগতি বিষয়ক জাতিসংঘের ‘হাই লেভেল পলিটিক্যাল ফোরাম (এইচএলপিএফ)’ এর কার্যক্রম শুরু হয় গত ১০ জুলাই থেকে ১৯ জুলাই পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়। পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের নেতৃত্বে ২২ সদস্যের একটি বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল এ সম্মেলনে যোগ দেয়। সম্মেলন শেষে গত ২০ জুলাই বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় বৃহত্তর লাকসাম ফাউন্ডেশন আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি প্রধান অতিথি হিসাবে যোগদান করেন। এই সভায় পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বরাবর লাকসাম জেলা বাস্তবায়ন পরিষদ যুক্তরাষ্ট্র শাখার সদস্য সচিব মশিউর রহমান নেতৃত্বে লাকসামকে জেলা ঘোষণার দাবী সম্বলিত এক স্বারকলিপি প্রদান করা হয়।

স্বারকলিপি গ্রহণ করে পরিকল্পনা মন্ত্রী বলেন, লাকসামকে জেলা ঘোষণার দাবী দীর্ঘদিনের এবং এটি একটি যৌক্তিক দাবী। লাকসামবাসীর এই ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী অবগত আছেন। তিনি এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন। আপনাদের দাবীর বিষয়ে আমি আবারো নেত্রীকে জানাবো। তিনি বলেন, কুমিল্লা জেলা বিভাগ হয়ে গেছে। শুধু নাম এখনো চুড়ান্ত হয়নি। যেকোন মুহুর্তে এই নাম চুড়ান্ত হলেই কুমিল্লা বিভাগের আনুষ্ঠানিক কাজ শুরু হবে। এছাড়া লালমাই ও বাঘমারাকে ঘিরে সরকার আরেকটি উপজেলা গঠনের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। যেকোন মুহুর্তেই এই উপজেলার সরকারি ঘোষণা দেয়া হবে বলে আশা করছি। লাকসাম জেলা বাস্তবায়ন সম্বলিক স্মারকলিপি গ্রহণ করার পর পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল স্বারকলিপিটি সাথে সাথেই পড়েন এবং সবাইকে দেখান।

সর্বশেষ সংবাদ