গাজা যুদ্ধের পর সামরিক বাজেট বাড়াচ্ছে ইসরাইল

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় বর্বর সামরিক আগ্রাসনের পর সামরিক বাজেট বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইহুদিবাদী ইসরাইল। ৫০ দিনের ওই অসম যুদ্ধে ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের প্রতিরোধের মুখে বড় ধরনের বিপর্যয়ে পড়েছে ইসরাইল।

ইসরাইলের যুদ্ধবাজ প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর কার্যালয় থেকে বুধবার এক বিবৃতির মাধ্যমে ঘোষণা করা হয়েছে-২০১৫ সালের সামরিক বাজেট শতকরা ১০ ভাগ বাড়বে। এতে ইসরাইলের সামরিক ব্যয় বেড়ে দাঁড়াবে ১,৫৫০ কোটি ডলারে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে-গাজা যুদ্ধের পর বাজেট ঘাটতি এড়ানোর জন্য মার্কিন সমর্থিত এ সরকার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাবে।

গাজা যুদ্ধের পর ইসরাইলের সেনাপ্রধান মোশে ইয়ালোন বাড়তি সামরিক বাজেট দাবি করেছেন। তিনি বলেছেন, তাদের ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে এবং ভবিষ্যত অভিযান চালানোর জন্য বাড়তি বাজেট প্রয়োজন।

ইয়ালোন বলেছেন, “গাজার ১০,০০০ রকেট ধ্বংসের জন্য আমরা ছয় হাজারের বেশি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হেনেছি। এরমধ্যে বিমান হামলা হয়েছে ৫,০০০ আর স্থল ও সমুদ্রপথে হামলা হয়েছে প্রায় ১,০০০ বার। শহর এলাকায় এসব হামলার জন্য প্রয়োজন সুনির্দিষ্ট গোয়েন্দা তথ্য এবং নিখুঁতভাবে হামলা চালানোর অস্ত্রপাতি। এজন্য অর্থের দরকার।”

এছাড়া, ইসরাইলের অর্থমন্ত্রী ইয়াইর লাপিড বলেছেন, ৫০ দিনের যুদ্ধ অনেক ব্যয়বহুল বিষয়; এখন ইসরাইলের সেনাদের জন্য নতুন অস্ত্রপাতির মজুদ প্রয়োজন।

You Might Also Like