খেলা শেষে হাসিটা ছিলো রোনালদোর পর্তুগালের!

এখন সময় ডেস্কঃলিঁওনে শেষ হাসিটা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোই হাসলেন। গোল করে ও করিয়ে পর্তুগালকে ইউরোর ফাইনালে নিয়ে গেছেন সিআর সেভেন। গ্যারেথ বেলের ওয়েলসকে ২-০ গোলে হারিয়ে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচ নিশ্চিত করেছে পর্তুগিজরা। ব্যক্তিগত দ্বৈরথে অনেকটা যেন রোনালদোর ছায়া হয়েই ছিলেন তার রিয়াল মাদ্রিদ সতীর্থ বেল। তাই নিজেদের ফুটবল ইতিহাসে প্রথমবারের মতো সেমিতে খেলার গর্ব নিয়েই ওয়েলসকে বিদায় নিতে হলো।

ফ্রান্সের ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে শিরোপা লড়াইয়ে জার্মানি বা স্বাগতিকদের মুখোমুখি হবে রোনালদোর পর্তুগাল। রোববার (১০ জুলাই) বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত ১টায় হাইভোল্টেজ ফাইনাল মাঠে গড়াবে। তার আগে বহস্পতিবার (৭ জুলাই) একই সময়ে দ্বিতীয় সেমিতে ফ্রান্সকে চ্যালেঞ্জ জানাবে জার্মানি।

হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিয়েই মাঠে নামে ওয়েলস-পর্তুগাল। দু’দলই আক্রমণাত্মক ফুটবল উপহার দেয়। কিন্তু প্রথমার্থ থাকে গোলশূন্য। বিরতির পর ঠিক পাঁচ মিনিটের মাথায় পর্তুগিজদের উল্লাসে মাতান রোনালদো। দুর্দান্ত হেডে ডিফেন্ডার রাফায়েল গিরেইরোর ক্রসটি জালে জড়াতে কোনো ভুল করেননি তিনবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী।
rana
তিন মিনিট বাদেই আবারো রোনালদো ম্যাজিক। এবার গোল করিয়ে ওয়েলসকে ব্যাকফুটে ঠেলে দেন রিয়াল আইকন। তার দুর্বল শটটি খুঁজে পায় ডি-বক্সে থাকা নানিকে। পায়ের স্পর্শে বল জালে পাঠিয়ে ব্যবধান দ্বিগুন করেন সাবেক ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তারকা।

দুই গোলে পিছিয়ে থাকা ওয়েলসের আর ম্যাচে ফেরা হয়নি। উল্টো এই সুযোগে প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগে একের পর এক আক্রমণ চালান রোনালদো-নানিরা। শেষ পর্যন্ত ২০০৪ আসরের পর ফাইনাল নিশ্চিতের উচ্ছ্বাস নিয়ে মাঠ ছাড়েন ফার্নান্দো সান্তোসের শিষ্যরা। প্রথমবারের মতো বড় কোনো আন্তজাতিক টুর্নামেন্টের শিরোপা জয় থেকে আর মাত্র একটি জয় দূরে লুইস ফিগোর উত্তরসূরিরা।

You Might Also Like