হোম » খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত বাংলাদেশের রাজনীতি

খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত বাংলাদেশের রাজনীতি

ঢাকা অফিস- Saturday, January 27th, 2018

বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলার রায় আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি ঘোষণা হবার কথা। এ রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে বাংলাদেশের রাজনৈতিক অঙ্গন। সর্বত্রই আলোচনা, কী ঘটতে যাচ্ছে? আর এ নিয়ে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য চলছে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতাদের মধ্যে।
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আজ জাতীয় প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠিত এক আলোচনা সভায় বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার রায় কী হবে, তা আওয়ামী লীগ নেতারা আগে থেকেই জানেন; তাই তারা আগে থেকেই হুমকি দিচ্ছেন— রায় নিয়ে বিশৃঙ্খলা তৈরি করলে দমন করা হবে।
এর আগেও অনেক নেতা বলছেন, ১৫ দিনের মধ্যে রায় হয়ে যাবে। তাদের কথামতোই রায় ঘোষণার তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। বিএনপি চেয়ারপারসনকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখার জন্যই তড়িঘড়ি করে রায়ের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে।’
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর
অনুষ্ঠানে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘মিথ্যা দুর্নীতির মামলার রায়ের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। আমাদের বিজ্ঞ আইনজীবীরা যুক্তি দিয়ে আদালতে দেখিয়েছেন, এটা মিথ্যা মামলা। আদালতে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জাল নথি উপস্থাপন করেছে প্রসিকিউশন। আমাদের আইনজীবীদের পুরো কথা কেউ শোনেনি। তাদের কথা বলার সুযোগ দেওয়া হয়নি। তড়িঘড়ি করে নজিরবিহীনভাবে এই মামলার রায়ের তারিখ ঘোষণার দিন নির্ধারন করা হয়েছে।’
অনুরূপ মন্তব্য করে বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু রেডিও তেহরানকে বলেন, মঈন-ফখরুদ্দিনের সরকারের দায়ের করা মিথ্যা মামলা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী তার প্রতিপক্ষ বেগম জিয়াকে রাজনীতি থেকে দুরে রাখতে চায়। আটই ফেব্রুয়ারী প্রমাণ হবে দেশে বিচারক আইনের দ্বারা পরিচালিত হন নাকি হুকুমের রায় দেন। এদিন প্রমাণ হবে দেশে গণতন্ত্র থাকবে না কী স্বৈরতন্ত্র?
এদিকে, শনিবার রাতে দলের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারনী ফোরাম স্থায়ী কমিটির জরুরি বৈঠক ডেকেছেন বেগম জিয়া। দলের নেতারা গতকাল বলেছেন,রায় নিয়ে সরকার প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে চাইলে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি হবে ফয়সালার দিন। সরকারের পতনের সূচনা হবে।
তবে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, রায় ঘিরে কেউ বিশৃঙ্খলা বা ধংসাত্মক কার্যকলাপের চেষ্টা করলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর ব্যবস্থা নেবে।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টে দুর্নীতির মামলার রায় ঘোষণার আগেই বিএনপি আদালতকে হুমকি। রায় নিজেদের পক্ষে আনতে আদালতকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। দলটির নেতারা রায়কে ঘিরে যেভাবে আগাম মন্তব্য করছেন, হুংকার দিচ্ছেন, তাতে মনে হচ্ছে, রায় কী হবে তা তারা জেনেই গেছেন।
২৬ জানুয়ারী শনিবার সকালে সাভারে হেমায়েতপুর-সিঙ্গাইর-মানিকগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের সম্প্রসারণ প্রকল্পের উদ্বোধনকালে এক অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদের এ মন্তব্য করেন।
সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ
ওদিকে, বিএনপির স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য ও সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার নামে যে মামলাগুলো করা হয়েছে সেগুলো সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট, এই মামলা ভিত্তিহীন ও ভুয়া। এ মামলা করার কারণ হলো বেগম খালেদা জিয়াকে হেয় প্রতিপন্ন করা এবং জাতীয়তাবাদী দলকে দুর্বল করা। কিন্তু এই মামলায় সরকার পক্ষ কোনো প্রমাণ দিতে পারে নাই। ৩২ জন সাক্ষীর মধ্যে ৩১ জন সাক্ষী খালেদা জিয়ার সংশ্লিষ্টতা আছে তা বলতে পারেনি। সুতরাং এটা নো-এভিডেন্স, আমরা আশা করছি যদি সু-বিচার হয়। তাহলে নিঃশ্বর্তভাবে খালাস পাবেন বেগম জিয়া।
আজ (শনিবার) সকাল ১১টায় নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জস্থ নিজ বাস ভবন সংলগ্ন মাদ্রাসা মাঠে বাটইয়া ইউনিয়ন বিএনপির তৃণমূল প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।