হোম » খালেদা জিয়ার মামলার রায়কে সামনে রেখে বিএনপি’র নেতা কর্মীদের ধরপাকড়ের মহা উৎসব

খালেদা জিয়ার মামলার রায়কে সামনে রেখে বিএনপি’র নেতা কর্মীদের ধরপাকড়ের মহা উৎসব

ঢাকা অফিস- Thursday, February 1st, 2018

৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মামলার সম্ভাব্য রায়কে সামনে রেখে নেতাকর্মীদের ব্যাপকহারে ধরপাকড় করছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি।
বিএনপির অভিযোগ, গত ক’দিনে এপর্যন্ত তাদের দু’শরও বেশি নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
ঢাকার বিভিন্ন জায়গা থেকে গত মঙ্গলবার পর্যন্ত ১২ ঘণ্টাতেই বিএনপির ২০ জনের বেশি নেতা-কর্মিকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দলটি অভিযোগ করেছে। তবে পুলিশ কাছ থেকে এই গ্রেফতারের সঠিক সংখ্যা জানা সম্ভব হয়নি।
তবে মঙ্গলবার গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আজিজুল বারি হেলালসহ ৬৯ জনকে বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার আদালতে হাজির করে তাদের প্রত্যেককে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে।
এর আগে গ্রেফতার হওয়া বিএনপি জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়সহ ৫৫ জনকে আদালতে হাজির করা হয়েছিল গত মঙ্গলবার। গ্রেফতার আতংকে ঢাকায় বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির এবং মধ্যম সারির অনেক নেতা রাতে বাসায় থাকছেন না।


এদিকে বিবিসি বাংলাকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, পুলিশ তাদের অনেক সিনিয়র নেতাদের বাসায়ও হানা দিচ্ছে।
পুলিশ তিনদিন ধরে ক্রমাগত নির্বিচারে গ্রেফতার করছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, শুধু গ্রেফতারই নয় বিএনপির জাতীয় পর্যায়ের বর্ষীয়ান নেতৃবৃন্দের বাড়িতেও হানা দিচ্ছে । সাবেক স্পিকার ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, তরিকুল ইসলাম,আব্দুল্লাহ আল নোমান, এ ধরণের অনেকের বাসায় পুলিশ হানা দিয়েছে।
তবে সরকার বলছে, পুলিশের গাড়িতে হামলা করে আসামী ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনায় সুনির্দিষ্ট নাশকতার মামলায় শুধু অভিযুক্তদেরকেই গ্রেফতার করা হচ্ছে।
বিএনপি বলছে বিপুল সংখ্যায় অজ্ঞাতনামা অভিযুক্ত করার সুযোগ কাজে লাগিয়ে ধরপাকড় করে তাদের নেতা কর্মীদের মধ্যে ভয় সৃষ্টি করা হচ্ছে।


বিএনপির এক মহিলা নেত্রী রুমিন ফারহানা বলেন, তাদের নারী শাখারও বেশ কয়েকজন নেত্রীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
এনিয়ে আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা এবং মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, মারমুখী যে আচরণ বিএনপি কর্মীরা করেছে পুলিশের প্রতি, এটা হতে পারে না। সরকার মারমুখী হয়নি। মারমুখী হয়েছে বিএনপি। এখানেতো ধরপাকড়ের কিছু নেই।
মন্ত্রী বলেন, সুনির্দিষ্টভাবে যারা পুলিশকে আক্রমণ করেছে, যারা পুলিশের কাছ থেকে আসামী ছিনিয়ে নিয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে মামলা দেয়া হয়েছে, তাদরেকেই গ্রেফতার করা হচ্ছে। এবং সেটা তদন্ত করে অপরাধীদের ব্যাপারেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এদিকে, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া তাঁর বাসভবন গুলশান থেকে মহাখালী, ফার্মগেট হয়ে হাইকোর্টের সামনে দিয়ে যে রুট ব্যবহার করে আদালতে যাওয়া আসা করতেন, পুলিশের পক্ষ থেকে সেই রুট পরিবর্তন করে দেয়া হয়েছে বলে বিএনপি নেতারা জানিয়েছেন।