খাগড়াছড়িতে ত্রিমুখী সংঘর্ষ : আহত ৩০

৫ জানুয়ারিকে কেন্দ্র করে খাগড়াছড়ি শহরের বিভিন্ন স্থানে বিএনপি-আওয়ামী লীগ ও পুলিশের ত্রিমুখী সংঘর্ষ হয়েছে। এতে কমপক্ষে ৩০জন আহত ও ৬ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে।

সোমবার সকালে এ ঘটনায় পুলিশ উত্তেজিত বিএনপির নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে ৫০-৬০ রাউন্ড রাবার বুলেট ও শর্টগানের গুলি ছুড়েছে।

ঘটনার প্রতিবাদে আগামীকাল মঙ্গলবার খাগড়াছড়িতে সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধের ডাক দিয়েছে জেলা বিএনপি।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে জেলা শহরে একজন ম্যাজিস্ট্রেট ও এক প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করেছে জেলা প্রশাসন। শহরে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। আওয়ামী লীগের কর্মীরা শাপলা চত্বর ও বিএনপি নেতা কর্মীরা মাস্টারপাড়া মোড়, কলাবাগান ও ভাঙ্গা ব্রিজ এলাকায় পতাকাবাহী লাঠি নিয়ে অবস্থান করছে।

জানা যায়, ৫ জানুয়ারিকে গণতন্ত্র হত্যা দিবস ঘোষণা দিয়ে সকালে কলাবাগান থেকে বিএনপির নেতাকর্মীরা কালো পতাকা নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করে শহর প্রবেশ করতে চাইলে মাস্টারপাড়া মোড়ে পুলিশ বাধা দেয়।

অপরদিকে আওয়ামী লীগ সরকারের এক বছর পূর্তিতে বিজয় র‌্যালি করে শাপলা চত্বর থেকে আওয়ামী লীগের কর্মীরা লাঠি নিয়ে সামনের দিকে অগ্রসর হলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এতে গুরুতর আহত হন জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক খনি রঞ্জন ত্রিপুরা ও জেলা সেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম। জেলা শহরে এখনো উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশের পাশাপাশি বিজিবি মোতায়েন রয়েছে।

খাগড়াছড়ি সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মো. সারওয়ার আলম জানান, পুলিশ উত্তেজিত নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে ৫০-৬০ রাউন্ড রাবার বুলেট ও শর্টগানের গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে।

You Might Also Like