হোম » কোমি-ট্রাম্প কথোপকথনের টেপ চেয়েছে কংগ্রেস

কোমি-ট্রাম্প কথোপকথনের টেপ চেয়েছে কংগ্রেস

ঢাকা অফিস- Monday, May 15th, 2017

এফবিআইয়ের বহিষ্কৃত প্রধান জেমস কোমির সঙ্গে কথোপকথনের কোনো টেপ রেকর্ড থাকলে তা কংগ্রেসের কাছে হস্তান্তরে ট্রাম্পের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন আইনপ্রণেতারা।

এর মধ্যে দিয়ে হোয়াইট হাউসের সঙ্গে কংগ্রেসের মত পার্থক্য সামনে এল। কারণ, কোমির পরিবর্তে এফবিআইয়ের নতুন প্রধানের বিষয়ে ভোটাভুটি প্রত্যাখ্যানের হুমকি দিয়েছেন ডেমোক্র্যাটরা।

গত সপ্তাহে প্রথার বাইরে গিয়ে এক টুইটে ট্রাম্প ইঙ্গিত দেন, তার কাছে কোমির সঙ্গে কথোপকথনের টেপ রেকর্ড থাকতে পারে এবং ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (এফবিআই) প্রাক্তন প্রধানকে তিনি গণমাধ্যমের সামনে কথা না বলার বিষয়ে সতর্ক করেন। তবে এ ধরনের কোনো টেপ রেকর্ডের অস্তিত্ব আছে কি না- এ বিষয়ে নিশ্চিত হতে চাইলে ট্রাম্প ও হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র গণমাধ্যমকে এ নিয়ে কোনো তথ্য দিতে অস্বীকৃতি জানায়।

সাউথ ক্যারোলাইনা থেকে নির্বাচিত লিন্ডসে গ্রাহাম বলেছেন, টেপ রেকর্ড নিয়ে যে গুজব ছড়িয়েছে, তা হোয়াইট হাউসকে অবশ্যই পরিষ্কার করতে হবে।

এনবিসিরি ‘মিট দা প্রেস’ অনুষ্ঠানে গ্রাহাম বলেন, ‘টেপের বিষয়ে আপনারা নমনীয় হতে পারেন না। যদি কথোপকথনের কোনো টেপ থাকে, তাহলে অবশ্যই তা হস্তান্তর করতে হবে।’

গত সপ্তাহে হঠাৎই এফবিআই প্রধানকে বহিষ্কার করে রাজনৈতিক ঝড় তোলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত বছরের যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ ও মস্কোর সঙ্গে ট্রাম্প টিমের সম্পর্কের বিষয়ে জেমস কোমির নেতৃত্বে তদন্ত করছিল এফবিআই।

ডেমোক্র্যাটদের অভিযোগ, এফবিআইয়ের তদন্তের গলা টিপে ধরতে কোমিকে বহিষ্কার করেছেন ট্রাম্প। এ বিষয়ে নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করেছেন তারা।

এফবিআই পরিচালনায় সক্ষমতা হরানোর অভিযোগ এনে কোমিকে বহিষ্কার করেন ট্রাম্প। তবে এ বিষয়ে তিনি এককভাবে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন কিনা, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। এ বিষয়ে সবশেষ মন্তব্য এসেছে জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালির কাছ থেকে। তিনি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র সরকারের প্রধান নির্বাহী ট্রাম্প এবং এই ক্ষমতাবলে তিনি কোমিকে বহিষ্কার করতে পারেন।

সর্বশেষ সংবাদ