কাশ্মির সীমান্তে পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে বিএসএফ জওয়ান নিহত

রাশিয়ার উফায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের মধ্যে নির্ধারিত বৈঠকের আগেভাগে পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে নিহত হয়েছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) এক জওয়ান। গত চার দিনের মধ্যে পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে এটি দ্বিতীয় মৃত্যুর ঘটনা। এর আগে গত ৫ জুলাই পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে এক বাঙালি বিএসএফ জওয়ান নিহত হয়েছিলেন।

 

বৃহস্পতিবার বিকেলে কাশ্মিরের বারামুলা সেক্টরে ভারত ও পাকিস্তান সীমান্তরক্ষীবাহিনীর মধ্যে গোলাগুলি চলা শুরু হলে কৃষ্ণ কুমার দুবে নামে বিএসএফের ওই জওয়ান নিহত হয়। তার বাড়ি ঝাড়খন্ড রাজ্যে। কয়েকদিন আগেই ছুটি কাটিয়ে কর্মস্থলে যোগ দেন কৃষ্ণ কুমার দুবে। আচমকা মৃত্যুর খবর শুনে তার বাবা মা ভেঙে পড়ার পাশাপাশি গ্রামবাসীরাও শোকাহত হয়ে পড়েছেন। কৃষ্ণ কুমার দুবের বাবা ধরম দাস দুবে জানান, তাকে ফোন করে কৃষ্ণ কুমারের গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর দেয়া হয়।

 

বিএসএফের মহানির্দেশক ডি কে পাঠক সীমান্তে জওয়ান নিহত হওয়ার ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করলেও বিস্তারিত কিছু জানাননি। সূত্রে প্রকাশ, বারামুলা জেলার নওগাম এলাকায় করম সীমান্ত চৌকিতে মোতায়েন বিএসএফ জওয়ান কৃষ্ণ কুমার দুবের ডান চোখে গুলি লাগে। সেই আঘাতেই লুটিয়ে পড়েন তিনি। সন্ধ্যায় দু’পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি চলা শুরু হয়।

 

প্রসঙ্গত, ৫ জুলাই ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে দু’পক্ষের মধ্যে গোলাগুলিতে ভারতীয় এক বাঙালি জওয়ান নিহত হয়। অভিজিৎ নন্দী নামে ওই সেনা জওয়ান ১১৯ নম্বর ব্যাটেলিয়ানের কনস্টেবল ছিলেন। তিনি কাশ্মিরের কুপওয়াড়ার নওগাম সেক্টরে প্রহরারত ছিলেন।

 

এদিকে, দীর্ঘদিন বাদে ভারত ও পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে বৈঠকের আগে পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে ভারতীয় বিএসএফ জওয়ান নিহত হওয়ার ঘটনায় বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে এ নিয়ে রাজনৈতিক ও অন্যান্যদের মধ্যে আলোচনা শুরু হয়েছে।

You Might Also Like