কারাগারের মেঝেতে রাত কাটালেন শশীকলা

রায় পক্ষে গেলে তিনি হয়তো তামিলনাড়ু রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সরকারি বাসভবনেই রাত কাটাতেন। তবে দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় ক্ষমতাসীন এআইএডিএমকের দলনেত্রী শশীকলা নটরাজনকে বুধবার কারাগারের মেঝেতেই রাত কাটাতে হয়েছে।

দুর্নীতির দায়ে বুধবার থেকে চার বছরের কারাবাসের মেয়াদ শুরু করেছেন শশীকলা। প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার এই কাছের মানুষটিকে সম্প্রতি দলের সভানেত্রী করা হয়েছিল। গত সপ্তাহে মুখ্যমন্ত্রী ও পনীরসেলভামকে সরিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। বিধানসভার দলনেত্রী হওয়ার সুবাদে শশীকলারই মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার কথা ছিল। তবে সুপ্রিম কোর্টের রায়ে পুরো চিত্রটাই এখন পাল্টে গেছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সকালে নাস্তা হিসেবে তেঁতুল ভাত ও চাটনি খেয়েছেন শশীকলা। তিনি কয়েক মিনিট ধ্যানও করেছেন। এআইএডিএমকের ৬১ বছর বয়সী এই নেত্রীর সঙ্গে বুধবার রাতে ছিল আরেক কয়েদি। তবে ওই কয়েদি একই মামলায় দণ্ডিত তার বৌদি ইলাভারাসি ছিল কিনা তা নিশ্চিত নয়।

বুধবার সন্ধ্যায় পারাপ্পানা আগ্রাহারা কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রবেশের আগে ডায়াবেটিসসহ স্বাস্থ্যগত সমস্যার কারণে প্রথম শ্রেণির সেল দেওয়ার জন্য বিচারকের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছিলেন শশীকলা। এ ধরণের সেলে ব্যক্তিগত টেলিভিশন, বাড়িতে তৈরি খাবার এবং সপ্তাহে দুইবার আমিষ জাতীয় খাবারের বরাদ্দ থাকে। এছাড়া ধ্যান করার জায়গা ও প্রয়োজনে প্রতি ঘন্টায় চিকিৎসা সহায়তা পাওয়ার আবেদনও করেছিলেন তিনি। তবে তার সব অনুরোধই প্রত্যাখ্যাত হয়েছে।

বুধবার এক কারা কর্মকর্তা বলেছেন, ‘শশীকলা বিশেষ কোনো সুযোগ-সুবিধা পাবেন না । সর্বোচ্চ যা পাবেন তা হল, কারাগারে মানিয়ে নেওয়ার জন্য পরামর্শের সুযোগ।’

You Might Also Like