হোম » ওয়েবক্যাম চ্যাট থেকে সাবধান!

ওয়েবক্যাম চ্যাট থেকে সাবধান!

এখন সময় ডেস্ক- Saturday, March 1st, 2014

ব্যক্তিগত তথ্য চুরির জন্য যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার (এনএসএ) বিরুদ্ধে সারা বিশ্বে সমালোচনার ঝড় উঠেছিল। এবার একই ধরনের কেলেঙ্কারির তথ্য ফাঁস হলো যুক্তরাজ্যের বিরুদ্ধে।

ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ানে গত বৃহস্পতিবার প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দা সংস্থা জিসিএইচকিউ লাখ লাখ মানুষের ওয়েবক্যাম চ্যাটে আড়িপেতে ছবি সংগ্রহ করেছে। এমনকি এসব ছবির মধ্যে একান্ত ব্যক্তিগত ও যৌনদৃশ্যের স্থিরচিত্রও রয়েছে।

গার্ডিয়ানকে এ তথ্য সরবরাহ করেছেন মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এনএসএ’র চুক্তিভিত্তিক কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রেরও আড়িপাতার তথ্য গার্ডিয়ানকে সরবরাহ করেন। এই তথ্য ২০০৮ থেকে ২০১০ সালের মধ্যে সংগ্রহ করা হয়েছে। স্নোডেনের সরবরাহকৃত তথ্যে দেখা যাচ্ছে, ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থার ওই আড়িপাতা প্রকল্পের কোড নাম ছিল ‘অপটিক নার্ভ’। তারা ইয়াহু চ্যাট থেকে প্রতি পাঁচ মিনিটে একটি করে ছবি সংগ্রহ করে তা মূল ড্যাটাবেজে সংরক্ষণ করেছে।

অপটিক নার্ভ প্রকল্পটি ছোট আকারে প্রথম শুরু হয় ২০০৮ সালে, চলে ২০১২ পর্যন্ত। এ প্রকল্পের উদ্দেশ্যই ছিল মুখের ছবি দেখে প্রয়োজনীয় কাউকে শনাক্ত করা এবং জিসিএইচকিউয়ের নজরদারিতে থাকা অথবা সন্দেহের তালিকায় যুক্ত হওয়া নতুন কাউকে খুঁজে বের করা।

গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, ২০০৮ সালে প্রকল্পটি শুরু হওয়ার পর মাত্র ছয় মাসেই সারা বিশ্বের ১৮ লাখ মানুষের ছবি ইয়াহু চ্যাট থেকে সংগ্রহ করেছে জিসিএইচকিউ।

তবে এখন এ ব্যাপারে গোয়েন্দা সংস্থাটি মুখ খুলছে না।

উল্লেখ্য, ইঙ্গ-মার্কিন চুক্তির আওতায় কয়েক দশক ধরে ব্রিটেনের জিসিএইচকিউ যুক্তরাষ্ট্রের এনএসএর সঙ্গে গোয়েন্দা তথ্য বিনিময় করছে। এছাড়া তারা ‘ফাইভ আই’ নামে একটি প্রকল্পের আওতায় কানাডা, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ডের আড়িপাতা সংস্থার সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করে।

সর্বশেষ সংবাদ