‘এক মাসের মধ্যে ফিরিয়ে আনা হবে’

পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক বলেছেন, মানবপাচারকারীদের খপ্পরে পড়ে বিভিন্ন দেশে আটকেপড়া বাংলাদেশীদের সরকার এক মাসের মধ্যে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছে। মঙ্গলবার সকালে মানবপাচার নিয়ে এক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জানান।

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, পাচারের শিকার বাংলাদেশীদের সহায়তা করতে দূতাবাসগুলো সক্রিয় রয়েছে। মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া এবং থাইল্যান্ডে অবস্থিত বাংলাদেশী মিশনের রাষ্ট্রদূতরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে অসহায় মানুষদের সহায়তা দিচ্ছেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশীদের একমাসের মধ্যে দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। পাশাপাশি মানবপাচার বন্ধ করতে শক্ত অবস্থান নিয়েছে বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ অনুযায়ী এই বিষয়ে বাংলাদেশের অবস্থান জিরো টলারেন্স। আর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঢাকা সফরে মানবপাচার প্রতিরোধ সংক্রান্ত একটি সমাঝোতা স্মারকে সই করা হবে।

তিনি আরও বলেন, মানবপাচারের পেছনে দেশী-বিদেশী কিছু ফ্যাক্টর আছে যা আয়ত্বের বাইরে। যার সঙ্গে আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক বিভিন্ন বিষয় জড়িত। মানবপাচারের পেছনে দারিদ্রতা মূল কারন নয়। আর এই সমস্যা সমাধান করা বাংলাদেশের একার পক্ষেও সম্ভব নয়। আঞ্চলিক এবং বৈশ্বিক উভয়ভাবে সমন্বিত পদক্ষেপের মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান করতে হবে।

সচিব বলেন, মিয়ানমারের সঙ্গে আলাপ হয়েছে। তারাও আঞ্চলিকভাবে এই সমস্যার সমাধান করতে আগ্রহী। মিয়ানমানর সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়েছে, তাদের ওখানে ২০০ বাংলাদেশী রয়েছে। আমরা সে খবর যাচাই করছি। এরপর আরও ৭০০ বাংলাদেশীর কথা মিডিয়ায় দেখেছি। কিন্তু আনুষ্ঠানিকভাবে মিয়ানমার সরকার এখনও ৭০০ বাংলাদেশীর বিষয়ে কিছুই জানায়নি।

You Might Also Like