একজন মদ পান করলে পরিবারের সবার জেল!

কোনো সদস্য মদ পান করলে পরিবারের সব প্রাপ্তবয়স্ক সদস্যকে হাজতবাস করতে হতে পারে। এমন আইনই আনতে চলেছে ভারতের বিহার রাজ্য সরকার। শনিবার রাজ্য বিধানসভায় এ-সংক্রান্ত ‘বিহার মদ্য নিষেধ ও আবগারি বিল, ২০১৬’ পেশ করেছে নিতিশ সরকার।

এই বিল চার মাস আগে তৈরি মদ্যপান নিরোধক আইনকে আরো শক্তিশালী করবে বলে সরকারের দাবি। বিলে বলা হয়েছে, পরিবারের কোনো সদস্যকে মদ্যপ অবস্থায় পাওয়া গেলে ওই পরিবারের প্রাপ্তবয়স্কদেরও সাজা ভোগ করতে হবে। সব ঠিক থাকলে আগামী সপ্তাহেই বিলটি নিয়ে আলোচনা হবে।

একের অপরাধে অন্যের শাস্তি! সরকারের এমন বিল নিয়ে বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। লালুপ্রসাদ নিজে বিষয়টি নিয়ে নিতিশ কুমারের সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানিয়েছেন। রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী রাবড়ি দেবী বিলের বিরোধিতা করেছেন। তিনি বলেন, ‘বাড়িতে কেউ মদ পান করলে পরিবারের সকলকে গ্রেপ্তার করা যায় নাকি!’

বিজেপিও এই বিলের বিরোধিতা করেছে। বিজেপি নেতা তথা প্রাক্তন উপমুখ্যমন্ত্রী সুশীল মোদি মদ নিয়ে নিতিশের ‘বাতিকগ্রস্ততা’কে কটাক্ষ করেছেন। তার বক্তব্য, রামের অপরাধে শ্যামের কখনো শাস্তি হতে পারে না।

৪৪ পাতার ওই প্রস্তাবিত বিলটি সমস্ত বিধায়কদের মধ্যে বিলিও করা হয়ে‌ছে। বিলে বলা হয়েছে, কোনোভাবে নেশার বিজ্ঞাপন দিলে বা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচার করলে পাঁচ বছরের জেল এবং দশ লাখ রুপি জরিমানা হতে পারে। নারী বা বালকদের নেশার দ্রব্য পাচার বা তৈরির জন্য ব্যবহার করলে যাবজ্জীবন কারাবাসও হতে পারে।

এই আইন ধোপে টিকবে কি না, তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে সরকারি কর্মকর্তারাও এ বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে সতর্ক করেছিলেন। কিন্তু এসবের কোনো কিছুতেই কান দিতে চাননি নিতিশ। আগামী উত্তর প্রদেশ নির্বাচন এবং ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটের দিকে তাকিয়ে এই মদ-রদই নিতিশের প্রচারের প্রধান হাতিয়ার। রাজ্যকে নেশামুক্ত করতে সমস্ত ক্ষমতার প্রয়োগ করতে চান তিনি। তার দাবি, এতে জিডিপিসহ সমস্ত ক্ষেত্রেই উন্নতি হবে।

You Might Also Like