উ. কোরিয়ায় যেতে চান দক্ষিণের নতুন প্রেসিডেন্ট

শপথ নেওয়ার পর প্রথম ভাষণে উত্তর কোরিয়ায় যাওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করলেন দক্ষিণ কোরিয়ার নতুন প্রেসিডেন্ট মুন জে-ইন।

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক ভালো করার বিষয়ে ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে মুন জে-ইনের।

এমন সময় দক্ষিণ কোরিয়ার ক্ষমতায় এলেন মুন জে-ইন, যখন উত্তর কোরিয়ায় হামলার বিষয়ে বা দেশটিকে শায়েস্তা করার নিয়ে আগ্রহ দেখাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। দক্ষিণ কোরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের থাড ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন নিয়ে কোরীয়দের বড় অংশের তুমুল বিরোধিতা ছিল। কিন্তু বিগত সরকারের সমর্থন ছিল এতে। যে কারণে কাজ এগিয়ে নিতে পারে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু মুন জে-ইন উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সহাবস্থানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। ফলে বেকায়দায় পড়তে পারেন ট্রাম্প।

মঙ্গলবার নির্বাচিত হওয়া মুন জে-ইন বুধবার সিউলে জাতীয় পরিষদ ভবনে প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন। তিনি উত্তর কোরিয়ার শরণার্থীর সন্তান এবং প্রাক্তন মানবাধিকার আইনজীবী।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মধ্যেই কোরীয় উপদ্বীপে সামরিক উত্তেজনা বিরাজমান রয়েছে। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় এবং উত্তর কোরিয়ার নতুন করে পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার হুমকি কোরীয় উপদ্বীপের মানুষকে আতঙ্কে রেখেছে। এ অবস্থার অবসান চান মুন জে-ইন।

অভিষেক ভাষণে মুন জে-ইন বলেছেন, ‘কোরীয় উপদ্বীপে শান্তি প্রতিষ্ঠায় যা করার আমি তা-ই করব… প্রয়োজনে জরুরিভিত্তিতে আমি ওয়াশিংটন যাব… যথাযথ সময়ে আমি বেইজিং ও টোকিও এমনকি পিয়ংইয়ংয়েও যাব।’

তিনি আরো জানান, বিতর্কিত থাড ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন নিয়ে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ‘জরুরি সমঝোতার’ বিষয়ে আলোচনা করবেন।

You Might Also Like