হোম » উত্তর কোরিয়ার দিকে এগোচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের রণতরী

উত্তর কোরিয়ার দিকে এগোচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের রণতরী

এখন সময় ডেস্ক- রবিবার, এপ্রিল ৯, ২০১৭

পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরে কোরীয় উপদ্বীপের দিকে এগোচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের বিমানবাহী রণতরী ইউএসএস কার্ল ভিনসনের নেতৃত্বে একটি যুদ্ধদল। উত্তর কোরিয়ায় উসকানিমূলক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার জবাব দিতেই ওই যুদ্ধজাহাজ সেখানে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

স্থানীয় সময় শনিবার সিঙ্গাপুর থেকে যুদ্ধজাহাজের ওই বহর উত্তর কোরিয়ার দিকে যাত্রা শুরু করে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র সেনাবাহিনীর প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের কমান্ডার অ্যাডমিরাল হ্যারি হ্যারিস।

তবে ওই অঞ্চলে প্রায়ই এমন মহড়া চালায় যুক্তরাষ্ট্র। গত মাসেও ভিনসেন্ট রণতরীটি দক্ষিণ কোরিয়ায় অবস্থান করছিল। ৯৭ হাজার টন ওজনের এই বিমানবাহী রণতরীটিতে ৬০টি আকাশযান ও পাঁচ হাজার সেনাসদস্য ও ক্রু থাকতে পারে।

একদিন আগেই উত্তর কোরিয়া একটি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালায়। তবে ওই ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই বিস্ফোরিত হয় বলে দাবি করে যুক্তরাষ্ট্র।

উত্তর কোরিয়ায় উসকানিমূলক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা এই প্রথম নয়। এর আগে গত বুধবার জাপান সাগরে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে উত্তর কোরিয়া। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের বৈঠকের ঠিক আগমুহূর্তে ওই ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হয়।

এ ছাড়া গত মাসে জাপান সাগরের দিকে চারটি ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে উত্তর কোরিয়া। ক্ষেপণাস্ত্রগুলোর মধ্যে তিনটি জাপানের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে পড়ে।

এর আগে ফেব্রুয়ারিতে পিয়ঙ্গান প্রদেশে অবস্থিত বাঙ্গিয়ন বিমানঘাঁটি থেকে জাপান সাগরের দিকে পরীক্ষামূলকভাবে ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে উত্তর কোরিয়া। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর সেটিই ছিল দেশটির প্রথম ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা।

চলতি বছরের জানুয়ারিতে উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন জানিয়েছিলেন, খুব তাড়াতাড়ি পারমাণবিক বোমা বহনে সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাতে যাচ্ছেন তাঁরা।

গত বছর বেশ কয়েকবার পারমাণবিক বোমার পরীক্ষামূলক বিস্ফোরণ ঘটায় উত্তর কোরিয়া। দেশটির একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ও আক্রমণাত্মক বিবৃতি ওই অঞ্চলে সংকটময় পরিস্থিতি তৈরি করছে বলে মনে করেন কিছু বিশ্লেষক।

পারমাণবিক অস্ত্র ও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার জেরে ২০০৬ সাল থেকেই উত্তর কোরিয়ার ওপর বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে জাতিসংঘ।

সর্বশেষ সংবাদ