ইসলামী রাজনীতিকে স্বীকার করেন না তারেক : চরমোনাই পীর

বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান ইসলামী রাজনীতিকে স্বীকার করে না বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম চরমোনাই পীর।
শুক্রবার চরমোনাই মাদ্রাসা মিলনায়তনে ছাত্র-শিক্ষকদের সঙ্গে মতবিনিময়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।
চরমোনাই পীর বলেন, স্বাধীনতার ৪৪ বছরে অনেক সরকার পরিবর্তন হয়েছে এবং অনেক দফার আবির্ভাব ও নেতা-নেত্রীর পরিবর্তনও হয়েছে, কিন্তু মানুষের ভাগ্যের কোন পরিবর্তন ঘটেনি, দেশ স্বাধীনের উদ্দেশ্যও সফল হয়নি।
তিনি বলেন, স্বাধীন দেশের মানুষ আজও অবহেলিত, নির্যাতিত। মানুষের খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান ও চিকিৎসার যথাযথ ব্যবস্থা নেই। ন্যায়বিচার থেকে আজও মানুষ বঞ্চিত, জানমালের নিরাপত্তা নেই। এমনকি মুসলমানদের ধর্মীয় স্বাধীনতা পর্যন্ত বিভিন্ন র্বেত্রে হরন করা হয়েছে।
মুফতি রেজাউল বলেন, স্বাধীন দেশের মানুষগুলো সবাই যেন পরাধীন জীবনযাপন করছে। এ অবস্থা থেকে জনগণকে মুক্তি দেয়ার দায়িত্ব যাদের কাঁধে, সেই শাসকগোষ্ঠী নিজেদের ক্ষমতার স্বার্থে মানুষকে শুধু শোষণ করেছে।
তিনি বলেন, ‘আমরা দেশপ্রেমিক মুসলমানরা মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ এদেশকে আর পেছনের দিকে যেতে দিতে পারি না। আমরা চাই সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও কায়েমী স্বার্থবাদীদের মুলোৎপাটন করে বাংলাদেশকে একটি উন্নত ও সমৃদ্ধশালী ভূখণ্ডে পরিণত করতে।’
‘আর এজন্য কোনো দফা বা ফর্মুলায় কাজ হবে না, ইসলামী শাসন ব্যবস্থাই পারে জাতিকে পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্ত করে প্রকৃত স্বাধীনতা উপহার দিতে’ যোগ করেন চরমোনাই পীর।
তিনি বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় এসে সংবিধান থেকে আল্লাহর ওপর ও আস্থা তুলে দিয়ে ধর্মনিরপেক্ষতা প্রতিষ্ঠিত করেছে। অন্যদিকে বিএনপি নেতা তারেক রহমান ইসলামী রাজনীতিকে স্বীকার করে না। তাহলে উভয়ের মধ্যে কোন পার্থক্য নেই।
ইসলামী আন্দোলনের আমির বলেন, এজন্য জোট-মহাজোটে যেসকল ইসলামী সংগঠন আছে তাদের উচিত হবে তাদের ত্যাগ করে ইসলামে ফিরে আসা। কেননা ইসলামই একমাত্র মানবতার মুক্তির ঠিকানা।

You Might Also Like