‘ইসলামী ব্যাংককে ঢেলে সাজানো সম্ভব নয়’

সরকারের শেয়ার ধারণের পরিমাণ কম হওয়ায় সরকারের পক্ষে ইসলামী ব্যাংককে ঢেলে সাজানো সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

রোববার বিকেলে সংসদের চতুর্দশ অধিবেশনে বিরোধী দলীয় সংসদ সদস্য সেলিম উদ্দিনের টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা জানান।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড বেসরকারি খাতের একটি লিমিটেড কোম্পানি। ব্যাংকের শেয়ারহোল্ডাররা কোম্পানিটির মালিক। শেয়ারহোল্ডার কর্তৃক নির্বাচিত পরিচালকরা তাদের পক্ষে ব্যাংকের স্বচ্ছতা ও গতিশীলতা আনয়নের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করে থাকেন। ইসলামী ব্যাংকে সরকারের শেয়ার ধারণের পরিমাণ মাত্র শূন্য দশমিক ০০১৩ শতাংশ (০.০০১৩) হওয়ায় এ ব্যাংককে ঢেলে সাজানোর জন্য সরকারের পক্ষে কোনো বিশেষ প্রদক্ষেপ বা কর্মসূচি গ্রহণ করা সম্ভব নয়।

এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, কিছু অসৎ ব্যবসায়ী পণ্যের পরিমাণ, বর্ণনা, সংখ্যা, মূল্য সম্পর্কে অসত্য তথ্য দিয়ে রাজস্ব ফাঁকির অপচেষ্টা করে থাকে।

রাজস্ব ফাঁকি বন্ধে সরকারের পদক্ষেপ তুলে ধরে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমদানি-রপ্তানি সংক্রান্ত কার্যক্রম অনলাইনে করার জন্য ইতিমধ্যে দেশের সব কাস্টমস হাউজ এবং গুরুত্বপূর্ণ ল্যান্ড কাস্টমস স্টেশনে অটোমেটেড সিস্টেম ফর কাস্টমস ডাটা ওয়ার্ল্ড সিস্টেম স্থাপন করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন দপ্তরের সাথে এই সফটওয়্যারটির সংযোগ স্থাপন করা হচ্ছে। এটির মাধ্যমে কাস্টমস সম্পর্কিত কার্যক্রম অনলাইনে করে অপঘোষণা প্রতিরোধ করা হচ্ছে।

নিজাম উদ্দিন হাজারীর প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে কাঙ্ক্ষিত গতি সঞ্চারের ফলে আমদানি ব্যয় উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধির সূত্রে টাকার মূল্যমান কিছুটা হ্রাস পাওয়ার প্রবণতা সৃষ্টি হয়েছে। এটা ভবিষ্যৎ রপ্তানি আয় ও রেমিট্যান্স বৃদ্ধির সহায়ক হিসেবেই বিবেচনা করা হচ্ছে।

You Might Also Like