ইরানে বিক্ষোভের জন্য শত্রুদের দুষলেন খোমেনি

ইরানে চলমান সরকারবিরোধী বিক্ষোভের জন্য শত্রুদের দায়ী করলেন দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খোমেনি। গত বৃহস্পতিবার থেকে বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পর ছয়দিনের মাথায় মঙ্গলবার প্রথমবারের মতো এ ব্যাপারে মুখ খুললেন তিনি।

খোমেনি বলেছেন, ‘সাম্প্রতিক দিনগুলোতে ইরানের শত্রুরা ইসলামিক প্রজাতন্ত্রের জন্য সমস্যা সৃষ্টি করতে অর্থ, অস্ত্র, রাজনীতি ও গোয়েন্দাবৃত্তির মতো বিভিন্ন অস্ত্র ব্যবহার করে আসছে।’

সঠিক সময় এলে চলমান এই বিক্ষোভ নিয়ে জাতির উদ্দেশে তিনি ভাষণ দেবেন বলে জানিয়েছেন খোমেনি।

নিজের দাপ্তরিক ওয়েবসাইটে দেওয়া বিবৃতিতে খোমেনি অবশ্য কোনো বিদেশি শত্রুর নাম উল্লেখ করেননি।

তবে ইরানের সর্বোচ্চ জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের সেক্রেটারি আলি শামখানি দাবি করেছেন, এই বিক্ষোভের পেছনে যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও সৌদি আরব কাজ করছে।

বৈরুতভিত্তিক আল-মায়াদিন টেলিভিশনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে শামখানি বলেছেন, ‘ইরানের কাছ থেকে অপ্রত্যাশিত জবাব পাবে সৌদি এবং এটা কতোটা গুরুতর হতে পারে তারা তা জানে।’

এদিকে, গত ছয়দিন ধরে চলা বিক্ষোভে ২২ জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। এদের মধ্যে নয়জন সোমবার রাতে নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ইরানের সরকারি সম্প্রচারমাধ্যম। নিহতদের মধ্যে এক শিশুও রয়েছে।

অপরদিকে তেহরান প্রদেশে পুলিশ গত কয়েকদিনে ৪৫০ বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করেছে। প্রাদেশিক উপ-গভর্নর আলি আসঘর নাসেরবাখত বলেছেন, ‘প্রায় ২০০ জনকে শনিবার, ১৫০ জনকে রোববার এবং ১০০ জনকে সোমবার গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি ও দুর্নীতির অভিযোগে ইরানের দ্বিতীয় জনবহুল শহর মাশহাদে বৃহস্পতিবার বিক্ষোভ শুরু করেছিল বিক্ষুব্ধরা। পরে তা সরকারবিরোধী বিক্ষোভে রূপ নিয়ে সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ে।

You Might Also Like