‘ইউএনওকে একক কর্তৃত্ব দেওয়া আমলাতান্ত্রিক চক্রান্ত’

বেতন স্কেল থেকে সিলেকশন গ্রেড ও টাইমস্কেল বাদ দেওয়া এবং ইউএনওকে একক কর্তৃত্ব দেওয়া আমলাতান্ত্রিক চক্রান্ত বলে অভিযোগ করেছে প্রকৃচি-বিসিএস সমন্বয় কমিটি।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে সংগঠনের পক্ষ থেকে এ অভিযোগ জানানো হয়।

প্রকৌশলী, কৃষিবিদ, চিকিৎসক ও বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের ২৬টি ক্যাডার নিয়ে গঠিত প্রকৃচি-বিসিএস সমন্বয় কমিটি।

ঘোষিত বেতন স্কেলে সিলেকশন গ্রেড ও টাইমস্কেল বাদ দেওয়ায় এটি একটি বৈষম্যমূলক বেতন স্কেলে পরিণত হয়েছে মন্তব্য করে মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের অসম্মানিত করে ইউএনওকে একক কর্তৃত্ব দেওয়ার সার্কুলার জারি সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যো অসন্তোষ সৃষ্টি করছে।’

ইউএনওকে একক কর্তৃত্ব দেওয়ায় প্রশাসন ক্যাডার ছাড়া অন্য সব ক্যাডার ও ফাংশনাল সার্ভিসের কর্মকর্তারা মর্যাদা ও আর্থিক দিক থেকে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।

বক্তারা বলেন, ‘এ সার্কুলার উপজেলা পর্যায়ে উন্নয়ন কর্মসূচিকে আমলাতান্ত্রিক বেড়াজালে ফেলবে এবং আমলাতান্ত্রিক দুর্নীতির নতুন সুযোগ সৃষ্টি করবে।’

এ সময় তারা ছয়দফা দাবি জানায়। দাবিগুলো হচ্ছে-

এক. মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব থেকে সচিব/সিনিয়র সচিব পর্যন্ত সকল পর্যায়ের কর্মকর্তাদের পদায়নের মাধ্যমে পেশাভিত্তিক জনপ্রশাসন গড়ে তুলতে হবে।

দুই. বেতনস্কেলে সিলেকশন গ্রেড ও টাইমস্কেল পুনর্বহাল করতে হবে।

তিন. উপজেলাকে কার্যকর করতে ইউএনওর কর্তৃত্ব বাতিল করে উপজেলা চেয়ারম্যানের ক্ষমতায়ন করতে হবে।

চার. আন্তঃক্যাডার বৈষম্য নিরসন করতে হবে।

পাঁচ. নিজস্ব ক্যাডার ও ফাংশনাল সার্ভিস বহির্ভূত সকল ধরনের প্রেষণ বাতিল করতে হবে।

ছয়. সকল ক্যাডার ও ফাংশনাল সার্ভিসের পদোন্নতির সমান সুযোগ প্রদান করতে হবে।

আগামী ৮ নভেম্বরের মধ্যে উল্লেখিত দাবি না মানা হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে জানান বক্তারা।

মানববন্ধনে উপস্থি ছিলন প্রকৃচি কেন্দ্রীয় স্টিয়ারিং কমিটির সচিব আব্দুস সবুর, কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনের মহাসচিব মোবারক আলী, বাংলাদেশ মেডিক্যাল এ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব ইকবাল আর্সনাল, বিসিএস সমন্বয় কমিটির মহাসচিব ফিরোজ খান প্রমুখ।

You Might Also Like