আল আকসা মসজিদ নিয়ে নতুন সংঘর্ষ : ৩ ফিলিস্তিনি নিহত

অধিকৃত জেরুজালেমের আল-আকসা মসজিদকে কেন্দ্র করে ২১ জুলাই শুক্রবার নতুন করে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। এ সময় দু’পক্ষের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষে অন্তত তিন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এছাড়া প্রায় ২০০ লোক আহত হয়েছেন।

মসজিদটিতে ৫০ বছরের কম বয়সী ফিলিস্তিনি পুরুষদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করে ইসরাইল। এর প্রতিবাদে শুক্রবার জুমার নামাজের পর ইসরাইলের এ বৈষম্যমূলক পদক্ষেপের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে বিক্ষোভ-র‌্যালি বের করে হাজার হাজার মুসল্লি।

এক পর্যায়ে ইসরাইল সেটেলার ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ বেধে যায়। এ সময় ইসরাইলি এক সেটেলার জেরুজালেমের রাস আলমুদ এলাকায় ১৮ বছর বয়সী এক ফিলিস্তিনি বালককে গুলি করে হত্যা করে। ফিলিস্তিনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, ইসরাইলি নিরাপত্তা বাহিনী ও রেড ক্রিসেন্ট এ হত্যার কথা নিশ্চিত করেছে। আলজাজিরা জানায়, বিক্ষোভকালে ইসরাইলি পুলিশ ফিলিস্তিনিদের ওপর টিয়ারগ্যাস, রাবার বুলেট ও বিভিন্ন ধরনের গোলাবারুদ ছোড়ে।

গত সপ্তাহে সন্দেহভাজন এক ফিলিস্তিনি বন্দুকধারীর গুলিতে দুই পুলিশ সদস্য নিহত হওয়ার ঘটনায় আকসা মসজিদে জুমার নামাজ বন্ধ করে দেয় ইসরাইল।

এরপর সপ্তাহজুড়ে ফিলিস্তিনিসহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষের প্রতিবাদের মুখে মসজিদটি খুলে দেয়ার পর নতুন নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ইসরাইল। এ নিষেধাজ্ঞায় ৫০ বছরের কম বয়সী ফিলিস্তিনি মুসল্লিদের মসজিদে প্রবেশ করতে বাধা দেয়া হয়।

ইসরাইলের বৈষম্যমূলক এ নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধেই শুক্রবার ফুঁসে ওঠে ফিলিস্তিনিরা। এদিকে শুক্রবারের এ সংঘর্ষের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে দেখা যাচ্ছে, ইসরাইলি এক পুলিশ মসজিদের বাইরে রাস্তার ওপর নামাজরত এক মুসল্লিকে লাথি মারছে।

ইসরাইল অধিকৃত পূর্ব জেরুজালেমে অবস্থিত আল আকসা মসজিদে প্রবেশের প্রধান দ্বার লায়ন্স গেটের সামনে মেটাল ডিটেক্টর বসানোর প্রতিবাদে কয়েকদিন ধরেই বাইরে নামাজ পড়ছিলেন বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার ফিলিস্তিনি ও ইসরাইলি আরবরা।

ইসরাইলের নিরাপত্তা মন্ত্রণালয় জানায়, পুলিশই সিদ্ধান্ত নেবে, মসজিদ কম্পাউন্ড থেকে কখন মেটাল ডিটেক্টর সরাতে হবে। ইসরাইলি কর্তৃপক্ষের এই সিদ্ধান্তকে ফিলিস্তিনিরা হতাশাজনক ও বৈষম্যমূলক পদক্ষেপ বলে অভিহিত করে। শুক্রবার এ নিয়ে আগে থেকেই বড় বিক্ষোভের ডাক দেয়া হয়। এর কয়েক ঘণ্টা আগে ইসরাইলের পুলিশ নতুন নিষেধাজ্ঞা জারি করে বলে জানায় আলজাজিরা।

ইসরাইলি পুলিশের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘৫০ ও তদূর্ধ্ব বয়সী পুরুষরা শুধু ওল্ড সিটি ও টেম্পল মাউন্টে প্রবেশ করতে পারবে। সব বয়সী নারী সেখানে প্রবেশ করতে পারবে।’ শুক্রবার সকাল থেকেই জেরুজালেমে আরব অধ্যুষিত এলাকাগুলোয় বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করে ইসরাইল। বিক্ষোভ ঠেকাতে অন্তত ৩ হাজার পুলিশ ও সীমান্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

You Might Also Like