‘আরেকটি মৃত্যুদ- হলে টানা হরতাল’

দলের আমির মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যুদণ্ডে ক্ষোভ জানিয়ে যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালে এই ধরনের আরেকটি রায় হলে আগামী সপ্তাহজুড়ে টানা হরতালের হুমকি দিয়েছে জামায়াতে ইসলামী।

নিজামীর পর দলের আরেক নেতা মীর কাসেম আলীর যুদ্ধাপরাধের মামলার রায়ের আগের দিন শনিবার নাটোরে খালেদা জিয়ার জনসভায় বক্তৃতায় এই হুমকি দেন জামায়াতের নায়েবে আমির মুজিবুর রহমান।

২০ দলীয় জোটের এই জনসভায় তিনি বলেন, “জামায়াত নেতৃবৃন্দকে হত্যার ষড়যন্ত্র চলছে। অধ্যাপক গোলাম আযমকে কারাগারে নির্যাতন করে শহীদ করা হয়েছে। আমাদের আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর বিরুদ্ধে অন্যায়ভাবে সর্বোচ্চ সাজা দিয়ে তাকে খতম করার ষড়যন্ত্র হচ্ছে।

“এর প্রতিবাদে হরতাল চলছে, হরতাল চলবে। আমরা স্পষ্টভাষায় বলে দিতে চাই, যদি আরেকটা এমন রায় হয়, তবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত লাগাতার হরতাল চলবে।”

একাত্তরে আল বদর বাহিনীর প্রধান নিজামীকে বুধবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল মৃত্যুদণ্ড দিলে তিন দিন হরতাল ডাকে জামায়াত।

বৃহস্পতিবার হরতালের পর সাপ্তাহিক ছুটির দুদিন বাদ দিয়ে রোব ও সোমবারও জামায়াতের হরতাল রয়েছে। মঙ্গলবার আশুরার সরকারি ছুটি। এখন বুধ ও বৃহস্পতিবারও হরতালের হুমকি দিল জামায়াত।

মুজিবুরের বক্তব্যের সঙ্গে খালেদা জিয়াসহ ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতারা মঞ্চে ছিলেন।
জামায়াত নেতা বলেন, “জীবন্ত আবদুল কাদের মোল্লা থেকে শহীদ আবদুল কাদের মোল্লা অনেক শক্তিশালী। জীবন্ত অধ্যাপক গোলাম আযম থেকে শহীদ গোলাম আযম বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বে সম্মানের ব্যক্তিত্ব হিসেবে সম্মানিত হয়েছেন।”

যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল এর আগে জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল কাদের মোল্লাকে মৃত্যুদণ্ড দেয়, যার ফাঁসি ইতোমধ্যে কার্যকর হয়েছে। গোলাম আযম দণ্ড ভোগের সময় সম্প্রতি কারাগারে মারা যান।

খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার হটানোর আন্দোলনের জন্য সবাইকে প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে মুজিবুর রহমান বলেন, “মিথ্যা মামলা, কারাগার, গুলি চালিয়ে জনগণের এই আন্দোলনকে দমানো যাবে না। এই সরকারের অবশ্যই বিদায় নিতে হবে।”

২০ দলীয় জোটের এই জনসভায় জামায়াতের নেতা-কর্মীদের বিপুল উপস্থিতি ছিল। তবে যুদ্ধাপরাধে দণ্ডিত নেতাদের নামে কোনও ব্যানার ও পোস্টার চোখে পড়েনি।

You Might Also Like