আমেরিকার সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ক্ল্যারেন্স থমাসের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ এনেছেন একজন নারী আইনজীবী। তিনি বলেছেন, ১৯৯৯ সালে একটি ডিনার পার্টিতে বিচারপতি থমাস অসঙ্গতভাবে তার শরীর স্পর্শ করেছিলেন।

আলাস্কা এনার্জি কোম্পানির কর্পোরেট আইনজীবী হিসেবে কর্মরত মরিয়া স্মিথ বলেছেন, ১৯৯৯ সালে যখন তার বয়স ২৩ বছর তখন বিচারপতি থমাস তার শরীরে হাত দেন। ন্যাশনাল ল’ জার্নালকে স্মিথ বলেন, ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যের ফল্‌স চার্চের ডিনার পার্টিতে থমাস তার নিতম্বে কয়েকবার হাত বুলান ও চেপে ধরেন।

তিনি আরো বলেন, “বিচারপতি থমাস আমার সম্মতি ছাড়াই আমাকে অসঙ্গতভাবে স্পর্শ করেন। আমি যখন টেবিলে খাবার সাজাচ্ছিলাম তখন তিনি আমার শরীর ধরে তার দিকে টানতে থাকেন যাতে আমি তার পাশে গিয়ে বসি।”

ওই নারী আইনজীবী বলেন, রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বহু নারীর পক্ষ থেকে যৌন হয়রানির অভিযোগ শুনে তিনিও নিজের জীবনের ঘটনা জনসমক্ষে প্রকাশ করে দিতে উৎসাহিত হয়েছেন। যারা অর্থ ও ক্ষমতাকে পুঁজি করে অসহায় মেয়েদের ক্ষতি করে তাদের চরিত্র উন্মোচন করে দেয়ার সময় এসেছে বলে মন্তব্য করেন মরিয়া স্মিথ।

৬৮ বছর বয়সি বিচারপতি থমাস অবশ্য এই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, এ ধরনের ঘটনা কখনোই ঘটেনি। ১৯৯১ সালে তৎকালীন রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট জর্জ এইচ. ডাব্লিউ. বুশের প্রস্তাবে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হয়েছিলেন ক্ল্যারেন্স থমাস।#

পার্সটুডে

You Might Also Like