আমি ভারতে জন্মেছি, ভারতেই মৃত্যুবরণ করব: আমীর খান

ভারতের প্রখ্যাত অভিনেতা আমীর খান বলেছেন, আমি দেশকে (ভারত) ভালোবাসি। আমি ভারতে জন্মেছি, ভারতেই মৃত্যুবরণ করব। নিজের দেশ ছেড়ে দুই সপ্তাহের বেশি কোথাও থাকতে পারি না। তিনি বলেন, আমি কখনোই বলিনি যে, দেশে অসহিষ্ণুতা আছে এবং দেশ ছেড়ে চলে যাব।

সোমবার মুম্বাইয়ে এক অনুষ্ঠানে আমীর খান বলেন, ‘আমি জানি কিছু মানুষ আমার ওপর ক্ষুব্ধ হয়েছেন। তাদের ক্ষুব্ধ হওয়া সঠিক, কারণ তাদেরকে আমার মন্তব্য সম্পূর্ণ দেখানো হয়নি। ওইসব লোকের সামনে বলা হয়েছে আমীর দেশ ছাড়তে চেয়েছেন।’ অসহিষ্ণুতা প্রসঙ্গে মিডিয়া ভুল বোঝাবুঝি ছড়িয়েছে বলে অভিযোগ করেন আমীর খান।

আমীর খান বলেন, ‘কেউ যদি আমার সামনে এমন কথা বলে তাহলে আমারও খারাপ লাগবে। যারা আমার ওপর ক্ষুব্ধ হয়েছেন, তাদের অসন্তুষ্টির বিষয়টি আমি বুঝি, তাদের কোনো দোষ নেই। তারা কেবল বিভ্রান্তির শিকার হয়েছেন। আমি গোটা দেশকে বলতে চাই, আমি এ দেশে জন্মেছি, এখানেই মরব।’

আমীর বলেন, আমি বা কিরণ কেউই দেশ ছেড়ে যাওয়ার কথা বলিনি। ভবিষ্যতেও কখনো এমন কথা কখনো চিন্তা করব না। আমি তো দুই সপ্তাহের বেশি দেশের বাইরে থাকতে পারি না।’

তিনি বলেন, ‘দেশের মানুষ দুঃখ পাওয়ায় আমি দুঃখিত। আমি দেশকে খুব ভালোবাসি, আমি একজন ভারতীয়।’ তার স্ত্রী কিরণ রাও একান্তে ঘরোয়া ভাবে যে কথা বলেছিলেন তা প্রকাশ্যে এভাবে বলা উচিত হয়নি বলেও মন্তব্য করেন আমীর খান।

কিছুদিন আগে এক অনুষ্ঠানে দেশে অসহিষ্ণুতা প্রসঙ্গে আমীর খানের মন্তব্যকে কেন্দ্র করে করায় দেশজুড়ে তুমুল বিতর্ক সৃষ্টি হয়। আমীরের স্ত্রী কিরণ রাও দেশ ছেড়ে চলে যেতে হবে কি না তা নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেন। আমীর খান তার স্ত্রীর আশঙ্কার কথা প্রকাশ্য আলোচনা মঞ্চে তুলে ধরতেই বিতর্ক শুরু হয়। আমীর খান দেশ ছাড়তে চাচ্ছেন বলে মিডিয়াতে প্রচারণা শুরু হয়।

এ নিয়ে হিন্দু মহাসভার নেতা কমলেশ তিওয়ারি মন্তব্য করেন, আমীর খান এবং শাহরুখ খানের মতো যেসব অভিনেতা দেশকে অসহিষ্ণু বলে মাতৃভূমিকে অপমান করছে, তারা দেশদ্রোহী। ওদের ভারত ছেড়ে চলে যাওয়া উচিত। আর এইসব লোকের মাথা কেটে প্রকাশ্য রাস্তায় ঝুলিয়ে দেয়া উচিত।’

আমীর খান অবশ্য বিরোধীদের সমালোচনাকে প্রত্যাখ্যান করে আগেই বলেছিলেন, যারা তার মন্তব্যের বিরোধিতা করছেন, তারা হয় সাক্ষাৎকারটি দেখেননি, নয়তো ইচ্ছাকৃতভাবে তার বক্তব্যকে বিকৃত করতে চাচ্ছেন।

You Might Also Like