আমি জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দলকে শ্রদ্ধা করি কেন?

আমি জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দলকে শ্রদ্ধা করি । কেন জানতে চান ? এই তো সেদিন বাংলাদেশকে ঘোষণা করে একের পর এক ম্যাচে পরাজিত করত জিম্বাবুয়ে । আমাদের ক্রিকেট দল সম্মানজনক প্রতিরোধও গড়তে পারতো না জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে । বিশ্বের কিছু নামকরা বিশ্বমানের খেলোয়ার ছিল জিম্বাবুয়েতে । গ্রান্ড ফ্লাওয়ার, এন্ডি ফ্লাওয়ারের নাম জানেনা অথচ ক্রিকেট খেলার নিয়মিত দর্শক এমনটা হতে পারে না । কিংবদন্তিতুল্য বহু খেলোয়ার জন্ম দিয়েছে জিম্বাবুয়ে । আজ সেই জিম্বাবুয়ের ক্রিকেট শক্তিতে ভাটির টান । বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের সাথে জিম্বাবুয়ে যখন মাঠে নামে তখন মনেই হয়না এককালে এই জিম্বাবুয়ে বাংলাদেশকে পরাজিত করত । বাংলাদেশের সাথে জিম্বাবুয়ের খেলার মানের ব্যবধান অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের সাথে যেমন ওয়েষ্ট ইন্ডিজের ব্যবধান । জিম্বাবুয়ের এ পিছুটান যতটা না তাদের খেলোয়ারদের মানের তার চেয়ে বেশি রাষ্ট্র হিসেবে জিম্বাবুয়ের ব্যর্থতার । হয়ত জিম্বাবুয়েও আবার একদিন ঘুরে দাঁড়াবে । তাদের স্বর্ণালী দিনগুলো ফিরে পাবে । তবুও আমি জিম্বাবুয়ের কাছে এ দেশের একজন ক্রিকেট প্রেমিক হিসেবে কৃতজ্ঞ । কেননা বিশ্বের অনেক দল যখন বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের নাম শুনলেই নাট সিঁটকাতো তখন এই জিম্বাবুয়ে নিঃস্বার্থ ভালোবাসায় বাংলাদেশে বিরুদ্ধে বন্ধুত্ব সূলভ আচরণ করে একের পর এক ম্যাচ খেলতো । আজকে বাংলাদেশের যে অবস্থান তার পেছনে জিম্বাবুয়ের অবদানকে কোনভাবেই খাঁটো করে দেখা চলে না কিংবা উচিতও নয়।

আমরা আজ অন্যকে পরাজিত করতে শিখেছি । অস্ট্রেলিয়া, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ডসহ কেউ আমাদের কবল থেকে মুক্তি পায়না । অথচ আমাদের প্রতিবেশি ভারতের মাটিতে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলটি এখন পর্যন্ত একটি দ্বিপাক্ষীয় সিরিজ খেলতে পারেনি । প্রথমবারের মত একজন বাংলাদেশী ব্যক্তি ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থার প্রেসিডিন্ট হয়েছিল কিন্তু তাও ভারতের চক্রান্তের কারণে পূর্ণ মেয়াদ কাটাতে পারেনি । ব্যক্তিগতভাবে আমি ভারত ক্রিকেট দলকে সাপোর্ট দিতে পারি না কিংবা মনও টানেনা যতটা জিম্বাবুয়ের জন্য ভালোলাগা জন্মে কিংবা ব্যথিত হই । বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বাংলাদেশের সকল বোলারকে আদেশ দিয়েছে যাতে জিম্বাবুয়ের ক্রিকেট দলের কোন ব্যাটসম্যানকে কথার মাধ্য স্লোজিং করা না হয় । এই না হলে একজন মহৎ অধিনায়ক । অতীতের অবদান যে স্মরণ রাখতে না পারে সে ভবিষ্যতে মহৎ হয় কী করে । আমি নিশ্চিত, আমাদের গর্বের অধিনায়ক দেশ সেরা পেসার মাশরাফি বিন মর্তুজা আমাদের জন্য উজ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে । আমরা দর্শক হিসেবেও যেন জিম্বাবুয়েকে কোনভাবেই তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য না করি । বিশ্বের বাঘা বাঘা দেশের বিরুদ্ধে আমাদের জয়ের যে শক্তি অর্জিত হয়েছে তার অনেকটাই জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দলের অবদানে । শুভ কামনা করি, জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দলের জন্য । ফের ফিরে আসুক ওদের সোনালী অধ্যায় । অনেক বৃহৎ শক্তির চেয়ে অনেক ক্ষুদ্র শক্তি খুব উপকারী যখন সেটা মঙ্গলে কাজ করে । জিম্বাবুয়ে আমাদের জন্য যা করেছে তার গুরুত্ব অনস্বীকার্য । আমাদের কৃতজ্ঞতা থাকা উচিত । উচ্ছৃঙ্খলতা দেখিয়ে আত্মপ্রসাদ লাভ করা যায় বটে তবে তা মঙ্গল বইতে পারে না ।

রাজু আহমেদ । কলামিষ্ট ।

You Might Also Like