আফগানিস্তানে বিশ্বের সবচেয়ে বড় বোমা ফেললো যুক্তরাষ্ট্র

আফগানিস্তানে ইসলামিক স্টেটের (আইএস) ঘাঁটি লক্ষ্য করে বিশ্বের সর্ববৃহৎ বোমা ফেলেছে যুক্তরাষ্ট্র । বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের সীমান্তবর্তী নাঙ্গাহার প্রদেশে এটি ফেলা হয়েছে।

জিবিইউ-৪৩ ম্যাসিভ অর্ডন্যান্স এয়ার ব্লাস্ট বম্ব বা এমওএবি নামের এই বোমাটি ‘সব বোমার জননী’ হিসেবে পরিচিত। ২০০৩ সালে ইরাক যুদ্ধের আগে প্রথম এ বোমার পরীক্ষা করা হয়। তবে এ পর্যন্ত কোনো যুদ্ধে এটি ব্যবহার করা হয়নি।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় নাঙ্গাহার প্রদেশের অচিন জেলায় ৯ হাজার ৮০০ কেজি ওজনের বোমাটি ফেলা হয়। এটি লম্বায় ৩০ ফুটেরও বেশি। মার্কিন বিমান বাহিনীর স্পেশাল অপারেশনস কমান্ড পরিচালিত এমসি-১৩০ বিমান থেকে এটি ফেলা হয়েছে। নাঙ্গাহার জেলায় আইএসের আস্তানা হিসেবে পরিচিত পাহাড়ের কিছু সুড়ঙ্গের ওপর এ বোমা ফেলা হয়।

সিরিয়ায় কয়েকদিন আগে মার্কিন বিমান হামলায় ভুলক্রমে ১৮জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হওয়ার ঘটনা স্বীকার করে নেওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই আফগানিস্তানে এই হামলা চালালো যুক্তরাষ্ট্র। বলা হচ্ছে, গত সপ্তাহে নাঙ্গারহার প্রদেশে আইএস যোদ্ধাদের সঙ্গে লড়াইয়ে মার্কিন স্পেশাল ফোর্সের এক সদস্য নিহত হওয়ার ঘটনার জবাবেই এই বোমা হামলা চালানো হয়েছে।

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র শন স্পাইসার বলেছেন, ‘ আইএস যোদ্ধারা নিরাপদে যাতায়াতের জন্য যেসব সুড়ঙ্গ ও গুহা ব্যবহার করতো সেগুলো লক্ষ্য করে আমরা এই হামলা চালিয়েছি। ওইগুলো ব্যবহার করে তারা সহজেই মার্কিন সেনা উপদেষ্টা ও আফগান বাহিনীর ওপর হামলা চালাতো।’

বেসামরিক লোক যাতে হামলার শিকার না হয়, সেজন্য আগে থেকেই সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল বলে জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে, এই হামলার নিন্দা জানিয়েছেন আফগানিস্তানের সাবেক রাষ্ট্রপতি হামিদ কারজাই। তার দাবি, যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তানকে অস্ত্র পরীক্ষার ক্ষেত্র হিসেবে ব্যবহার করতে চাইছে।

You Might Also Like