আইসিটি মামলায় আহমেদ রাজু গ্রেপ্তার

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের (আইসিটি) মামলায় গ্রেপ্তার হয়েছেন নতুন সময় ডটকম এর নির্বাহী সম্পাদক আহমেদ রাজু। রোববার রমনা থানা পুলিশ আহমেদ রাজুকে গ্রেপ্তার করেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও নিজেদের অনলাইন মাধ্যমে উদ্দেশ্যমূলকভাবে মিথ্যা, বানোয়াট ও বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশের মাধ্যমে দেশীয় ব্র্যান্ড ও দেশীয় শিল্পের ক্ষতি সাধনের অপচেষ্টায় লিপ্ত থাকার সুনির্দিষ্ট অভিযোগে দায়ের করা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মামলার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রমনা থানার ওসি (তদন্ত) আলী হোসেন জানান, বর্তমানে তথ্যপ্রযুক্তির অপব্যবহারের মাধ্যমে অনেকেই অন্যের ক্ষতি করার অপচেষ্টা করে থাকে। এক্ষেত্রে এ ধরনের ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। তদন্তপূর্বক বিস্তারিত জানা যাবে।

এই মামলার বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মারুফ হোসেন সরদার বলেন, ‘আইসিটি মামলাকে যথেষ্ট গুরুত্ব দেওয়া হয়। ৫৭/৬৬ ধারায় করা মামলায় আহমেদ রাজু গ্রেপ্তার হয়েছেন। বিষয়টি তদন্তপূর্বক যতদ্রুত সম্ভব চার্জশীট দেওয়া হবে।’

প্রসঙ্গত, অনলাইন নিউজ পোর্টাল নতুন সময় ডটকমে দেশের শীর্ষস্থানীয় ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক্স, অটোমোবাইলস, হোম অ্যাপ্লায়েন্স ও টেলিকমিউনিকেশন পণ্য উৎপাদন ও বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন-এর নিজস্ব ব্র্যান্ড ‘ওয়ালটন’ মোবাইল নিয়ে মিথ্যা তথ্যনির্ভর একাধিক প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। প্রতিবেদন প্রকাশের পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এ বিষয়ে নেতিবাচক প্রচারণা করে। যা দেশীয় ব্র্যান্ড ও দেশীয় শিল্পের ক্ষতি সাধনের অপচেষ্টা হিসেবে বিভিন্ন মহলে চিহ্নিত হয়েছে।

উল্লেখ্য, অভ্যন্তরীণ মোবাইল ফোন বাজারের সম্পূর্ণ নির্ভরতা কমাতে দেশেই মোবাইল ফোন ও এক্সেসরিজ উৎপাদন শিল্প স্থাপনে ব্যাপক উদ্যোগ নিয়েছে ওয়ালটন। দেশীয় কোম্পানিটি হ্যান্ডসেটের পাশাপাশি মোবাইল ট্যাব, কম্পিউটার মনিটর ও ল্যাপটপসহ বিভিন্ন আইটি পণ্য তৈরিরও ঘোষণা দিয়েছে। ইতোমধ্যে, নিজস্ব কারখানায় মোবাইল ফোনের ডিসপ্লে, মাল্টি-লেয়্যার মাদারবোর্ড তৈরিতে পুরোপুরি প্রস্তুত ওয়ালটন। স্থাপন করেছে ডিজাইন ডেভেলপ, গবেষণা ও উন্নয়ন এবং মান নিয়ন্ত্রণ বিভাগ। অর্থ মন্ত্রনালয়, ডাক ও টেলিযোগাাযোগ এবং আইসিটি মন্ত্রণালয় এর কাছ থেকে ইতিবাচক নীতি সহায়তার আশ্বাসে খুব শীঘ্রই ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ স্টীকারযুক্ত মোবাইল হ্যান্ডসেট তৈরির প্রক্রিয়া শুরু করতে যাচ্ছে ওয়ালটন। যা বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয়।

সূত্রমতে, ওয়ালটনের এই মহৎ উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন তথা ডিজিটাল ডিভাইস উৎপাদন খাতে বাংলাদেশের শুভ সূচনাকে রুখে দিতে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে দেশী-বিদেশী একটি স্বার্থান্বেষী মহল। তারা দেশীয় ব্র্যান্ডের মোবাইল ফোনের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমূলক অপপ্রচার চালাচ্ছে। মোবাইল ফোনের পাশাপাশি ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ লেখা ওয়ালটনের এলইডি টেলিভিশন সম্পর্কেও ইন্টারনেটভিত্তিক সংবাদ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন খবর ছড়াচ্ছে স্বার্থান্বেষী মহলটি। অবশ্য ওয়ালটন তথা দেশীয় উদীয়মান প্রযুক্তি পণ্য উৎপাদন শিল্পের বিকাশকে বাধাগ্রস্থ করতে যারা হীন অপপ্রচার চালাচ্ছে তাদেরকে আইনের আওতায় আনার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক দাবি উঠেছে।

You Might Also Like