অস্ট্রেলিয়ার বর্ষসেরা ক্রিকেটার স্মিথ

অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ দেশের বর্ষসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হলেন৷ ক্রিকেটের তিন ফরম্যাট মিলে বর্ষসেরার পুরস্কার অ্যালান বর্ডার মেডেলও জিতে নিয়েছেন ২৫ বছর বয়সী এই অজি ব্যাটসম্যান। ফলে মঙ্গলবার সিডনিতে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানটা একেবারেই স্মিথময় হয়ে দাঁড়াল।

বর্ষসেরা উদীয়মান ক্রিকেটারের পদক গিয়েছে শন অ্যাবটের হাতে। সিডনি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে কিছুদিন আগে সতীর্থ ফিলিপ হিউজের মৃত্যুর কারণ হয়ে গত কিছুদিন তুমুল আলোচনায় থাকা অ্যাবটের জন্য নিশ্চিতভাবেই এই পুরস্কার বিশেষ স্মরণীয় হয়ে থাকবে। উৎসাহিত হবেন অ্যাবট৷

প্রথমবারের মতো ঐতিহ্যবাহী অ্যালান বর্ডার পদক জেতার পথে স্মিথের সামনে সবচেয়ে বড় বাধা ছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার। বর্ষসেরা টেস্ট খেলোয়াড়ের পুরস্কার জয়ের দারুন সম্ভাবনা ছিল দু’জনেরই। পরিসংখ্যান বলছে খানিকটা এগিয়েই ছিলেন ওয়ার্নার। তবে বছর জুড়ে ওয়ানডেতে তার অনুপস্থিতি অ্যালান বর্ডার পদক প্রাপ্তিতে ওয়ার্নারকে স্মিথের থেকে পিছনে ফেলছে বলেই ধারণা করেছিলেন ক্রিকেট পণ্ডিতরা।

২০১৪ সালের জানুয়ারি থেকে চলতি বছরের জানুয়ারি পর্যন্ত স্মিথের দুর্দান্ত টেস্ট এবং ওয়ানডে ফর্মই তাকে বর্ষসেরার পদকের জন্য ওয়ার্নারের চেয়ে এগিয়ে রেখেছিল। যদিও টেস্টে দুজনের মধ্যে ব্যবধান ছিল খুব কম। ভোটিংয়ের সময়টাতে স্মিথ টেস্টে সর্বমোট ১২১২ রান করেছেন যেখানে ওয়ার্নারের সংগ্রহ ১২০৯ রান। ওয়ার্নার সাতটি সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন, স্মিথ পাঁচটি।

ওয়ানডে শিরোপা প্রাপ্তিতেও এগিয়ে ছিলেন স্মিথ। তার সঙ্গে এই ক্যাটাগরিতে ছিলেন জেমস ফকনার এবং অ্যারন ফিঞ্চ। ওয়ানডেতে ফিঞ্চের ৪৩.১৩ গড়ে ৬৪৭ রান সংগ্রহের বিপরীতে স্মিথের সংগ্রহ ছিল ৪৯.১৮ গড়ে ৫৪১ রান।

তবে শেষ পর্যন্ত স্মিথের কাছে পাত্তাই পাননি আর কেউ। স্মিথের ২৪৩ ভোটের থেকে ৬৮ ভোট কম পেয়েছেন ওয়ার্নার।

You Might Also Like