অশ্রুসিক্ত বিদায় বললেন মরকেল

বিদায় সব সময়ই পীড়াদায়ক। সেটা যেকোনো বিদায়ই। বিদায় সর্বদা একটা শূন্যস্থান তৈরি করে। সেই শূন্যস্থান যে হৃদয়েও তৈরি হয়। বিদায় শব্দটি বলার পর আকুলতাটুকু টের পাওয়া যায়। তাইতো ‘বিদায়’ শব্দটি পুরোটাই বিষাদ ও আকুলতায় ছাওয়া।

দক্ষিণ আফ্রিকার অভিজ্ঞ পেসার মরনে মরকেল আজ ১২ বছরের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারকে ‘বিদায়’ বলেছেন। প্রোটিয়াদের হয়ে শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচটি খেলে ফেলেছেন। তার এই বিদায় বলাটা ওয়ান্ডারাস স্টেডিয়ামকে সিরিজ জয়ের দিনেও বিষাদের ছোঁয়া দিয়েছে।

অবশ্য এই বিদায়ের ঘোষণা তিনি ২৬ ফেব্রুয়ারিই দিয়েছিলেন। বলেছিলেন এই সিরিজই তার দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে শেষ সিরিজ। মূলত তার অস্ট্রেলিয়ান স্ত্রী ও সন্তানকে সময় দিতেই তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলেছেন। যেহেতু তিনি ক্রিকেটার। ক্রিকেট ছাড়া জীবন তার কাছে অকল্পনীয়। তাই হৃদয়ের টানে তিনি বিভিন্ন লিগ ও ঘরোয়া ক্রিকেট খেলে যাবেন।

ম্যাচ শেষে মরনে মরকেল বলেন, ‘যখন আপনি ঘরের মাঠের দর্শকদের সামনে খেলেন, বিশেষ করে নিউল্যান্ডসে সেটা সত্যিই দারুণ কিছু। আসলে এই জিনিসগুলো আমি বেশ মিস করব। ড্রেসিং রুমের হাসি-ঠাট্টা মিস করব। তবে আমি সেই সেই নতুন খেলোয়াড়টির জন্য উচ্ছ্বসিত যে আমার অবর্তমানে দলে সুযোগ পাবে। তার যাত্রা শুরু করবে। এটা আসলেই একটি বিশেষ যাত্রা।’

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট না খেললেও ঘরোয়া ও বিভিন্ন টি-টোয়েন্টি লিগ খেলে যাবেন তিনি। কিন্তু বিদায় বেলায় জানিয়েছেন দেশের হয়ে খেলার মতো তৃপ্তি ও প্রশান্তি আর কোথাও নেই, ‘অনেককেই বলতে শুনি তারা নাকি খেলাটা মিস করে না। তবে আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি মিস করব। আমি আর কখনোই নেটে আসব না। গা গরম করব না। যা এতোদিন আমি করেছি। তবে আমি সবকিছু উপভোগ করেছি। আমি যদি বলি যে দেশের হয়ে ক্রিকেট খেলাটা মিস করব না, তাহলে সেটা মিথ্যে বলা হবে। এখনো ক্রিকেটের জন্য আমার ভালোবাসা আছে। দেশের হয়ে খেলাটা মিস করব। দেশের হয়ে খেলার মতো তৃপ্তি ও প্রশান্তি আর কোথাও নেই।’

২০০৬ সালে ভারতের বিপক্ষে ডারবানে অভিষেক হয় মরনে মরকেলের। ২০০৭ সালে আফ্রিকা একাদশ ও এশিয়া একাদশের বিপক্ষের ম্যাচে বেঙ্গালুরুতে ওয়ানডে অভিষেক হয় তার। আর একই বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে জোহানেসবার্গে টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয় এই পেসারের।

৩৩ বছর বয়সী এই পেসার দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ৮৬টি টেস্ট, ১১৭টি ওয়ানডে ও ৪৪টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। সব ফরম্যাটে এ পর্যন্ত নিয়েছেন ৫৪৪ উইকেট। ২৭.৬৬ গড়ে টেস্টে তিনি নিয়েছেন ৩০৯টি উইকেট। আজ মঙ্গলবার বিদায়ী টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে বল হাতে ২৮ রানে নিয়েছেন ২টি উইকেট।

You Might Also Like